‘আ. লীগ ক্ষমতায় নির্যাতন করে না, উন্নয়ন করে’


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-11-02 16:32:19 BdST | Updated: 2018-12-13 06:19:21 BdST

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের মেয়াদে বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর ব্যাপক অত্যাচার-নির্যাতন হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ২০০১ সালে ষড়যন্ত্র করে আমাদের হারানো হলো। এরপর ২০০৮ সাল পর্যন্ত ময়মনসিংহসহ গোটা এলাকায় আমাদের অগণিত নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অগণিত নেতাকর্মীর ওপর অত্যাচার-নির্যাতন চালানো হয়েছে। আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের অসংখ্য নেতাকর্মীকে আমরা হারিয়েছি। কিন্তু আওয়ামী লীগ কারও ওপর অত্যাচার-নির্যাতন করে না। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে মানুষের উন্নয়ন করে, মানুষের কল্যাণ করে।

শুক্রবার (২ নভেম্বর) বিকেলে ময়মনসিংহের ঐতিহাসিক সার্কিট হাউজ মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন। জনসভার আগে ময়মনসিংহে মোট ১৯৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর ও উদ্বোধন করেন তিনি।

পরে জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সদ্য স্বাধীন একটি দেশকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু ১৯৭৫ সালে নির্মমভাবে তাকে হত্যা করা হয়। বাবা-মা-ভাই— সবাইকে হারিয়েছি। রিফিউজি হয়ে দেশের বাইরে থাকতে হয়েছে। ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় এসে দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যায়। শিক্ষা, বিদ্যুৎ— সব খাতে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলাম। কিন্তু আবারও ষড়যন্ত্রের শিকার হলাম। ২০০১ সালে ষড়যন্ত্র করে আমাদের ক্ষমতায় আসতে দেওয়া হলো না।

শেখ হাসিনা বলেন, ২০০২ সালে এই ময়মনসিংহে চার চারটি সিনেমা হলে বোমা ফুটল। ১৮ জন নিহত হলেন, আহত হলেন ২০০ জন। ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত এই এলাকার বিভিন্ন অঞ্চলে নারীদের ওপর অকথ্য অত্যাচার, নির্যাতন করা হয়েছে। তাদের গণধর্ষণ করা হয়েছে। ১৯৭১ সালে যেভাবে পাকিস্তানি বাহিনী গণধর্ষণ করেছে, তারা সেভাবে নারীদের ওপর অকথ্য নির্যাতন করেছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে কাউকে অত্যাচার করে না, আওয়ামী লীগ করে উন্নয়ন, মানুষের কল্যাণ।

আওয়ামী লীগ সভাপতি আরও বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোটের কাজ কী ছিল? তারা নির্বাচন ঠেকানোর নামে আগুন দিয়ে ৩ হাজার ৯০০ মানুষকে পুড়িয়ে দিয়েছে, ৫শ মানুষকে আগুনে পুরিয়ে মেরেছে। তাদের সময় তো মানুষের স্বাভাবিক চলাফেলার অধিকার ছিল না। খুন, হত্যা, দখল, চাঁদাবাজি, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, বাংলা ভাই সৃষ্টি আর মানি লন্ডারিং— এই তো ছিল কাজ। আর ছিল সরকারের নামে হাওয়া ভবন। সেখান থেকে সব অর্থ বিদেশে পাচার করে দেওয়া হতো।

২০০৮ সালে দেশের মানুষ আওয়ামী লীগকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করার পর গত ১০ বছরে সরকার নজিরবিহীন উন্নয়ন করেছে বলে মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এই যে আজ ময়মনসিংহ বিভাগ, আমরা করে দিয়েছি। আজ আপনাদের সামনে এই এলাকার সার্বিক উন্নয়নের জন্য উপহার নিয়ে এসেছি। কিছুক্ষণ আগে সেগুলোর উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছি।

এরপর প্রধানমন্ত্রী ময়মনসিংহের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের বিবরণ তুলে ধরেন।

জনসভা যৌথভাবে পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগ সাধাররণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন ও মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এহতেশামুল আলম।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।