কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ করে ভিডিও, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী গ্রেফতার


শেকৃবি
Published: 2019-04-18 19:00:08 BdST | Updated: 2019-05-20 15:52:38 BdST

মার্কস মেডিকেল কলেজের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে বাধন মাতব্বর (২৩) নামে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) এক ছাত্রকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে থেকে বাধনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার বাধন শেকৃবির অ্যাগ্রি বিজনেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অনুষদের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র।

পুলিশ জানায়, ভুক্তভোগী ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করে বাধন। এ সময় ধর্ষণের দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করা হয়। পরবর্তীতে ধারণ করা দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ছাত্রীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে বাধন। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ছাত্রী বাদী হয়ে শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা করেন।


বিষয়টি নিশ্চিত করে শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানে আলম মুন্সি বলেন, ধর্ষণের শিকার ছাত্রী বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ (সংশোধিত ২০০৩) ধারা ৭/৯ (১), তৎসহ প্যানাল কোড-৩৮৫/৫০৬ মামলার আসামি বাধন মাতব্বর। আমরা ধর্ষণের অভিযোগে বাধনকে গ্রেফতার করেছি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে বাধন। পরবর্তীতে তাকে কোর্টে চালান করে দেয়া হয়েছে।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. ফরহাদ হোসেন বলেন, এ বিষয়ে থানা কর্তৃপক্ষ আমাকে অবহিত করেছিল। আমি বিষয়টি নিয়ে উপাচার্য স্যারের সঙ্গে কথা বলে শৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ে বিষয়টি উপস্থাপন করব।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, এর আগেও বাধন মাতব্বর রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে বিভিন্ন মেয়ের সঙ্গে শেরেবাংলা হলের গেস্টরুমে সময় কাটিয়েছে। অভিযোগ না থাকায় ওই সময় তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।