সুকুমার বাউলের পাশে ঢাবি ছাত্র ইসতিয়াক


ঢাবি টাইমস
Published: 2020-05-14 17:41:19 BdST | Updated: 2020-06-04 14:45:20 BdST

৫০ বছর ধরে গানের জগতে সুকুমার বাউল। বাউল সুকুমার মহন্ত নামেও পরিচিতি রয়েছে তাঁর। শেষ বয়সে এসে এক গানেই বাজিমাত। "বলব না গো আর কোন দিন, ভালবাসো তুমি মোরে"। এমন কোন মানুষ পাওয়া যাবেনা যে এই গান শুনেননি। জনপ্রিয় এই গানের জনকই বাউল সুকুমার। অনেক খ্যাতি অর্জন করেছেন। মানুষের ভালবাসা পেয়েছেন। শুধু ভালবাসায় কি আর জীবনধারণ হয়? পেটে ভাত দেয়ার ব্যবস্থা হয়?

করোনা মহামারীতে বগুড়া জেলার সোনাতলায়, বিশ্বনাথপুরে অনেকটা জরাজীর্ণ ঘরে দুই নাতনী, এক নাতি, ছেলে, ছেলের বউসহ ৮ জনের সংসার নিয়ে কষ্টে দিনাতিপাত করছিলেন বাউল সুকুমার। এমন সময় ওনার পরিবারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইসতিয়াক আহমেদ হৃদয়। চাল, ডাল, আলু, পেয়াজ, তৈল, দেশি মুরগি, ডিম, লবণ, চিনি, আটা সহ প্রায় ৪০ কেজি ওজনের নিত্য সদাই ওনার পরিবারের কাছে পাঠিয়ে দেন ইসতিয়াক। ক্যাম্পাস টাইমসকে ইসতিয়াক জানান, " আজকে পর্যন্ত সারা দেশের বিভিন্ন জায়গায় ১২৭ টি পরিবারকে বাজার এবং আর্থিক সহায়তা দিয়ে পাশে থেকেছি। মানবতার কাছে আমরা হেরে গেলে করোনা যুদ্ধে হেরে যাব। হারতে চাইনা। আমার এ চেষ্টা অব্যাহত রাখব"।

বাউল সুকুমারকে ফোন করলে তিনি ক্যাম্পাস টাইমসকে জানান," হৃদয় দাদা পরশু দিন ফোন করছিল। কইছিল দাদারে দেখব। এরপরে আর ফোন দেয়নাই। আজকে দেখি আমার বাড়ির উঠান ভইরে গেছে এত এত বাজার দিয়া। ফোন কইরা কইল, দাদা আপনারে সারপ্রাইজ দিব এজন্য ফোন করিনাই। দোয়া করি হৃদয় দাদার মঙ্গল হোক।"

ইসতিয়াক আহমেদ হৃদয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদ(DURS) এর সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনের সাথে সাথে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের সাথে যুক্ত আছেন।