ক্যান্সারে আক্রান্ত ঢাবির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী মুন্নি বাঁচতে চায়


টাইমস ডেস্ক
Published: 2018-01-10 18:28:51 BdST | Updated: 2018-09-19 01:19:52 BdST

‘আমার দ্রুত ইন্ডিয়া যেতে হবে, কিন্তু টাকার অভাবে পারছি না, আমার মা বাবা বেঁচে নেই। আপনাদের একটু সহানুভূতিই পারে আমার চিকিৎসার ব্যয়বহুল খরচ জোগাতে- কান্না জড়িত কন্ঠে ফোনে এভাবেই বলছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ইংরেজি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সাবরিনা মমতাজ মুন্নি।

ঢাবির এ শিক্ষার্থী বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নতুন বিল্ডিংয়ের ১০ তলার ১০২ নম্বর কেবিনে শুয়ে তার রঙিন স্বপ্নগুলোকে মরতে দেখছেন। তার শরীরে বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধি ব্লাড ক্যান্সার।

গত বছর সহায় সম্পত্তির প্রায় সবটাই বিক্রি করে ভারত থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছিলো প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাসিমের মেয়ে মুন্নি। কিন্তু আট মাস না পেরোতেই আবার তার দেহে ফিরে এসেছে লিউকিমিয়া। রোগটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে তার দেহে।

ঢামেক হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব মুন্নির শরীরে ‘বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট’ প্রতিস্থাপন করা প্রয়োজন। এ জন্য প্রায় ৪০ লাখ টাকার প্রয়োজন। যা তার পরিবারের পক্ষে বহন করা অসম্ভব। ইতোমধ্যে বিভিন্ন মহলে সাহায্যের জন্য আবেদন করা হয়েছে। সাহায্য চাওয়া হয়েছে সাধারণ মানুষের কাছেও।

মুন্নির সহপাঠী রাকিবুজ্জামান রাফি বলেন, আমরা কি পারি না, মেধাবী এ শিক্ষার্থীর মুখে আবার হাসি ফুটাতে? আমরা কি পারি না তার স্বপ্নগুলো বাঁচিয়ে রাখতে? আসুন, মুন্নির দিকে আমরা সাহায্যের হাত বাড়াই, তাকে ক্যান্সারের থাবা থেকে মুক্ত করি।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা- সোনালী ব্যাংক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস শাখা, সাবরিনা মমতাজ মুন্নি, হিসাব নম্বর- ৪৪০৫৭০১০২৪৬৭৯।

এইচজে/ ১০ জানুয়ারি ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।