মাদ্রাসা শিক্ষকদের দাবি মানার আশ্বাস শিক্ষামন্ত্রীর, অনশন অব্যাহত


টাইমস প্রতিবেদক
Published: 2018-01-14 18:27:04 BdST | Updated: 2018-09-19 01:37:30 BdST

জাতীকরণের দাবি মানার আশ্বাস পেয়েছেন আমরন অনশনরত স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকরা। দুই-একদিনের মধ্যেই অনশন ভাঙানোর বিষয়ে অগ্রগতি জানানো যাবে বলে শিক্ষক নের্তৃবৃন্দদের জানিয়েছে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী।

রোববার (১৪ জানুয়ারি) কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের অফিসকক্ষে আন্দোলনরত বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকগণের দাবির বিষয়ে এক সভায় মিলিত হন। সভায় আন্দোলনরত বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকগণের দাবি বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। চলমান সংকট নিরসনে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সক্রিয় প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছে। শীঘ্রই এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীকে অবহিত করা হবে।

এ সময় কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা সচিব মো. আলমগীর, অতিরিক্ত সচিব এ কে এম জাকির হোসেন ভূঁইয়া, অশোক কুমার বিশ্বাস ও রওনক মাহমুদ, মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. বিল্লাল হোসেনসহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভাশেষে শিক্ষামন্ত্রী বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি কাজী রুহুল আমিন চৌধুরী ও মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমানকে আমন্ত্রণ জানিয়ে সভার সিদ্ধান্ত অবহিত করে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আন্দোলনরত আমরন অনশনকারী শিক্ষকগণকে নিয়ে ঘরে ফিরে যাবার অনুরোধ জানান। তিনি এই তীব্র শীতের মধ্যে আর কষ্ট না করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনাদের দাবি ও সমস্যা যথাযথভাবে আমরা প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরবো। আপনারা ঘরে ফিরে যান।

এ সময় প্রতিনিধিরা মন্ত্রীর প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে বলেন, সারা দেশের শিক্ষক প্রতিনিধিগণ যেহেতু অনশনে আছে, সেখান থেকে ২০ জনের একটি প্রতিনিধিদলের সামনে এই প্রস্তাব তুলে ধরলে ভালো হয়। সেই অনুযায়ী বিকাল ৩টায় আবার ২০ জনকে তাঁরা মন্ত্রীর অফিসকক্ষে নিয়ে আসেন। মন্ত্রী সম্প্রসারিত কলেবরের প্রতিনিধিগণের সামনে আবার আন্দোলনরত সকলকে ঘরে ফিরে যাবার অনুরোধ জানান। তাঁদের দাবি বিষয়ে শীঘ্রই প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর কাছে যথাযথভাবে তুলে ধরার আশ্বাস দেন।

এদিকে শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসের পরও অনশন অব্যাহত রেখেছে ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকরা। সংগঠনটির মহাসচিব মােখলেসুর রহমান দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে।

জানা গেছে, ৬ষ্ঠ দিনে মাদ্রাসার শিক্ষকদের সংখ্যা আরও বেড়েছে। সাথে বেড়েছে অসুস্থ হওয়া শিক্ষকদের সংখ্যা। বেশিরভাগই আক্রান্ত হচ্ছেন নিউমোনিয়ায়। রোববার পর্যন্ত একজন মুক্তিযোদ্ধাসহ মোট ১৬৫ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এর মধ্যে চারজনকে মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।

বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির ব্যানারে গত ১ জানুয়ারি থেকে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করে আসছেন মাদ্রাসার শিক্ষকরা।পরে দাবি না মানলে ৯ জানুয়ারি থেকে লাগাতার আমরন অনশন কর্মসূচী পালন করছেন তারা।

জেডএম/ ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।