ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রের লাশ উত্তোলন


টাইমস প্রতিবেদক
Published: 2018-08-06 06:51:46 BdST | Updated: 2019-09-20 00:40:49 BdST

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় তিন মাস পর ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এক ছাত্রের লাশ কবর থেকে তোলা হয়েছে। কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের কুমুরুড়া গ্রামের পারবারিক কবরস্থান থেকে ওই ছাত্রের লাশ উঠানো হয়।

রোববার (০৫ আগস্ট) দুপুরে আদালতের নির্দেশে লাশটি তোলা হয়।

নিহত শিক্ষার্থীর নাম সাইফুল্লাহ্ তালুকদার মহসিন (২৩)। তাঁর বাবার নাম আলী আকবর তালুকদার মল্লিক। সাইফুল্লাহ ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিবিএর তৃতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ছিলেন।

নিহত ছাত্রের পরিবার ও পুলিশে জানিয়েছে, গত ২৩ এপ্রিল দিবাগত গভীররাতে সাইফুল্লাহ্ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের ছাত্রাবাসের ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে মারা যান বলে তাঁর অভিভাবককে জানানো হয়। খবর পেয়ে পরের দিন সকালে (২৪ এপ্রিল) আলী আকবর তালুকদার মল্লিক সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে তাঁর ছেলে সাইফুল্লাহর মরদেহ দেখতে পান।

এরপর এটিকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে নিহত ছাত্রের বাবা গত ৭ জুন আদালতে একটি হত্যা মামলা করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে আজ দুপুরে নেত্রকোনা আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ বিন কাশেমের উপস্থিতিতে সাইফুল্লাহর লাশ কবর থেকে উঠানো হয়।

এ সময় অন্যদের মধ্যে ঢাকার সিআইডির পরিদর্শক মিজানুর রহমান, কেন্দুয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হুসেন ও সাইফুল্লাহর বাবা উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলী আকবর তালুকদার মল্লিক উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৩ এপ্রিল গভীর রাতে সাইফুল্লাহ নিজের কক্ষ থেকে অন্য কক্ষে যাচ্ছিলেন। এ সময় ছয়তলা থেকে মাটিতে পড়ে যান তিনি। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে শিক্ষার্থীরা উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এসএম/ ০৬ আগস্ট ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।