বিদেশি শিক্ষার্থীদের এখনি আসতে নিষেধ করছে কানাডা


টাইমস ডেস্ক
Published: 2020-08-02 12:46:48 BdST | Updated: 2020-09-21 15:08:32 BdST

চলতি বছরের ১৮ মার্চ ও এর পরবর্তী সময়ে স্টাডি পারমিট পাওয়া বিদেশি শিক্ষার্থীদের এখনি কানাডায় আসতে নিষেধ করছে সরকার। তার আগে অনুমোদন পা্ওয়া শিক্ষার্থীদেরও ভ্রমণ পরিকল্পনা চূড়ান্ত করার আগে খোঁজ খবর নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

সকল বিদেশি শিক্ষার্থীদের নতুন নির্দেশনা জানিয়ে চিঠি পাঠাচ্ছে কানাডা ইমিগ্রেশন। গত ২১ জুলাই কানাডা সরকার নতুন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কানাডা সরকারের এই সিদ্ধান্তে বাংলাদেশি অবস্থানরত বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী বিপাকে পড়েছেন। তাদের অনেকেই বিমানের টিকেট কেটে করোনাভাইরাসের টেস্ট করতে নমুনা দিয়েছেন। কিন্তু কানাডার নতুন নির্দেশনার পর তারা কানাডায় আসতে পারবেন কী না সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারছেন না।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে গত মার্চে কানাডা বিদেশি নাগরিকদের কানাডায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। পরে নাগরিক এবং স্থায়ী বাসিন্দাদের পরিবারের নিকটতম সদস্যদের এই নিষেধাজ্ঞা থেকে অব্যহতি দেয়। স্টাডি পারমিট পা্ওয়া বিদেশি শিক্ষার্থীদেরও এই নিষেধাজ্ঞা বাইরে রাখা হয়। গত ২১ জুলাই নতুন সিদ্ধান্তে ১৮ মার্চ এবং তার পরে অনুমোদন পা্ওয়া শিক্ষার্থীদের সীমান্ত না খোলা পর্যন্ত কানাডায় না আসার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ১৮ মার্চ বা তার পরে স্টাডি পারমিট পা্ওয়া বিদেশি শিক্ষার্থীরা কানাডায় এলে তাদের ঢুকতে দেয়া হবে না।

১৮ মার্চের আগে স্টাডি পারমিট পা্ওয়া বিদেশি শিক্ষার্থীদের এই নিষেধাজ্ঞার বাইরে রাখা হলেও তাদের অনুসরণের জন্য কয়েকটি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে তাদেরও চিটি পাঠানো হচ্ছে। চিঠিতে কানাডায় আসার পর সম্ভাব্য যে সব পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে বিশেষ করে স্বাস্থ্যবিধি এবং ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনের বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষাকার্যক্রম চালু আছে কী না তার খোঁজ নিতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

সরকারি নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ১৮ মার্চের আগে স্টাডি পারমিট পাওয়া শিক্ষার্থীদের ভ্রমণের ক্ষেত্রে সেটি ঐচ্ছিক কিংবা স্বেচ্ছা ভ্রমণ (অপশনাল বা ডিসক্রিশনারি) নয়, তার প্রমাণ দিতে হবে। এই মুহূর্তে তার কানাডা ভ্রমণ অপরিহার্য- তার স্বপক্ষে দালিলিক প্রমাণ দিতে হবে।