বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়কে দেয়া রাস্তা ফিরিয়ে নিলেন মমতা


Dhaka
Published: 2020-12-29 12:46:37 BdST | Updated: 2021-01-28 10:20:24 BdST

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সঙ্ঘাতে জড়িয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। জমি নিয়ে বিতর্কে এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিশ্বভারতীকে দেয়া রাস্তা ফিরিয়ে নিয়েছেন। বিশ্বভারতীর কাচমন্দিরের সামনে যে রাস্তা একসময় বিশ্বভারতীর হাতে তুলে দেয়া হয়েছিল, সোমবার সেটা ফের রাজ্যের পূর্ত দফতরকেই ফিরিয়ে দিলেন তিনি।

মমতা জানিয়েছেন, ওই রাস্তায় সাধারণ মানুষের চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। তা নিয়ে স্থানীয়দের কাছ থেকে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে। তার জেরেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সোমবার বোলপুরে গীতাঞ্জলি প্রেক্ষাগৃহে প্রশাসনিক বৈঠক করেন মমতা। সেখানে তিনি জানান, বোলপুরে আসার আগেই ফাইলে সই করে এসেছিলেন তিনি। বিশ্বভারতীর কাছ থেকে ওই জমির অধিকার পূর্ত দফতরকে ফিরিয়ে দেয়া হলো।

উল্লেখ্য, ওই রাস্তার পাশেই অমর্ত্য সেনের বাড়ি ‘প্রতীচী’। ওই বাড়িতে তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি ঢুকে গেছে বলে সম্প্রতি দাবি করেন বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। তবে রাস্তা ফিরিয়ে নেয়ার সঙ্গে অমর্ত্যর বাড়ি নিয়ে বিতর্কের কোনো সংযোগ রয়েছে কি না, তা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি মমতা। বরং আশ্রমিকদের অভিযোগের ভিত্তিতেই রাস্তা ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। ওই রাস্তা নিয়ে আশ্রমিকদের কাছ থেকে পাওয়া চিঠিও প্রকাশ্য মঞ্চে পড়ে শোনান তিনি।

বিশ্বভারতীর কাচমন্দিরের উপাসনাগৃহ থেকে কালীসায়র পর্যন্ত যে রাস্তা, ২০১৮ সালে পূর্ত দফতরের হাত থেকে সেটির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব বিশ্বভারতীর হাতে তুলে দিয়েছিল রাজ্য সরকার। এরপর থেকে নানা অভিযোগ উঠতে শুরু করে।

বলা হয়, বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ তখন রাস্তাটি বন্ধ করে দেয়। মালবাহী গাড়ি চলাচল একেবারেই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষেরও যাতায়াতও প্রায় বন্ধ। বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো অনুষ্ঠান থাকলেও রাস্তা বন্ধ রাখা হয়।

এ নিয়ে প্রবীণ আশ্রমিক এমনকি সাধারণ মানুষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই ক্ষোভ জমা হচ্ছিল। বিষয়টি নিয়ে মমতাকে চিঠি দিয়েছিলেন সাতজন আশ্রমিক। তারপরই এ দিন রাস্তা ফিরিয়ে নেয়ার ঘোষণা করেন তিনি।

মমতার ঘোষণার পরই এদিন আশ্রমিকদের সঙ্গে দেখা করতে যান বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিংহ। তিনি জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে খুশি আশ্রমিকরা। মমতাকে কৃতজ্ঞবার্তা পৌঁছে দেয়ার আর্জি জানিয়েছেন তারা।