প্রয়োজনে থানায় গিয়ে ওসিগিরি করবো: ডিএমপি কমিশনার


টাইমস ডেস্ক
Published: 2019-09-15 23:47:20 BdST | Updated: 2019-10-24 11:24:57 BdST

থানার ওসিদের আচরণ পরিবর্তন না হলে সিনিয়র অফিসাররা থানায় গিয়ে বসবে। প্রয়োজনে ডিএমপি কমিশনার নিজে গিয়ে বসবেন। রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম মিট দ্য প্রেসে প্রশ্নের জবাবে একথা জানান নবনিযুক্ত ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, অন্যায় আচরণের জন্য দায়ী কোনো পুলিশ সদস্যকে রক্ষার চেষ্টা করা হবে না। রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি।

বাংলাদেশ পুলিশের সবচেয়ে বড় ইউনিট ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। ৫০টি থানা নিয়ে গঠিত মহানগরীর মানুষের সেবার জন্য রয়েছে অসংখ্য পুলিশ। তবে অনেক ক্ষেত্রেই থানায় গিয়ে যথাযথ সেবা পাওয়া যায় না। ক্ষেত্র বিশেষে হয়রানির অভিযোগও করেন কেউ কেউ। নতুন ডিএমপি কমিশনার বলছেন, থানায় গিয়ে মানুষ যেনো যথাযথ সেবা পায় সে বিষয়টি নিশ্চিত করার চেষ্টা থাকবে। পুলিশ ভীতি দূর করার পাশাপাশি পুলিশের চাঁদাবাজি বন্ধে কঠোর হওয়ার কথাও জানান তিনি।

ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বলেন, একটি অপরাধের শিকার মানুষ স্বাভাবিকভাবেই থানায় গিয়ে তার কথা বলতে পারে। পুলিশের কোনো হয়রানি ছাড়া মামলা বা জিডি করতে পারবেন। আমাদের থানায় যারা কাজ করছেন তাদের আচরণে যদি মনে করি যে, কাঙ্ক্ষিত পরিবর্তন হয়নি তাহলে আমাদের সিনিয়র অফিসাররা থানায় গিয়ে বসা শুরু করবো। আমি নিজে থানায় গিয়ে ওসিগিরি করবো। আমার ডিসিদের থানায় বসিয়ে দিবো এবং অন্য যে অফিসাররা আছেন তারা সপ্তাহে একদিন থানায় উপস্থিত থাকবেন।

দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম মিট দ্য প্রেসে নবনিযুক্ত ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

 

প্রায় দুই কোটি মানুষের নগরী ঢাকার বড় সমস্যা যানজট রোধেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস ডিএমপি কমিশনারের। পরিস্থিতি যেমনই হোক দায় এড়ানোর কোনো চেষ্টা থাকবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

শফিকুল ইসলাম বলেন, ইতোমধ্যে আমি নির্দেশ জারি করেছি যে, ট্রাফিকের সিনিয়র অফিসারদের মাঠে থাকতে হবে। শুধু সার্জেন্ট এবং টিআই'র উপর নির্ভর না করে সকালের দিকে তিন ঘণ্টা এবং অফিস ছুটির পর তিন ঘণ্টা সিনিয়ররা মাঠে থাকবেন, কেউ অফিসে থাকবে না।

এসএম/ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯