মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষায় ১ম, ২য়, ৩য় হলেন যারা


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-10-09 00:12:00 BdST | Updated: 2018-10-15 19:11:36 BdST

এ বছর এমবিবিএস প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করেছেন ইশমাম সাকীব অর্ণব। তার টেস্ট স্কোর ৮৭.০০। ইশমাম সাকীব অর্ণবের গ্রামের বাড়ি খুলনার ফায়ার ব্রিগেড রোড এলাকায়। ইশমাম সাকীব অর্ণবের বাবার নাম আবদুস সোবহান ও মায়ের নাম হাবিবুন নাহার। তার বাবা একজন চাকরিজীবী ও মা গৃহিনী।

জাতীয় মেধায় ১ম হওয়া এ মেধাবী তরুণ খুলনার সেন্ট জোসেফ স্কুল থেকে এসএসসি ও এম এম সিটি কলেজ থেকে এইচএসএসসি কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হন।

ফল প্রকাশের পর উচ্ছ্বসিত প্রতিক্রিয়ায় ইশমাম সাকীব অর্ণব বলেন, ‘এ রেজাল্টের কারণে আল্লাহকে প্রথমে অশেষ ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি আমার মা-বাবাকে অশেষ ধন্যবাদ জানাতে চাই।’

যাদের কাছে একদিন হলেও পড়েছি, তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা

তার এ কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য শিক্ষকদের বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়ে অর্ণব বলেন, ‘যারা আমার পেছনে শ্রম দিয়েছেন, আমার সব শিক্ষক মণ্ডলীর কাছে আমি কৃতজ্ঞ। যাদের কাছে আমি একদিন হলেও পড়েছি, তাদের সবার প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই।’

এ ব্যাপারে মেডিকেলের ভর্তি প্রস্তুতি হিসেবে কোচিং সেন্টারের মডেল টেস্টগুলোও তাকে বিশেষ সহায়তা করেছে বলে জানান অর্ণব। তিনি বলেন, তাদের গাইডলাইনগুলো আমাকে বিশেষ সহায়তা করেছে। আমি তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞ।

দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী উম্মে শেফা আইরিন

এ বছর মেডিকেল ভর্তি (এমবিবিএস প্রথম বর্ষ) পরীক্ষায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন উম্মে শেফা আইরিন। এবারের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় তার টেস্ট স্কোর- ৮৫.৭৫। তার বাবার নাম শাহ মোহাম্মদ ইদ্রিস ও মা নূর নাহার বেগম। তিনি চট্টগ্রাম গভর্নমেন্ট গার্লস হাইস্কুল থেকে এসএসসি ও চট্টগ্রাম কলেজ থেকে জিপিএ ৫ পেয়ে এইচএসসি পাস করেন।

মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষায় অসাধারণ ফলাফলের প্রতিক্রিয়ায় উম্মে শেফা আইরিন বলেন, আমি আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি। আমার মা-বাবার দোয়া ও আল্লাহর অশেষ রহমতের কারণেই এ ফলাফল অর্জন হয়েছে। এছাড়াও কোচিং সেন্টারের গাইডলাইনগুলোও আমার ভালো রেজাল্ট করতে সহায়তা করেছে।

নীলফামারীর সজিব চন্দ্র রায় মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় তৃতীয়

এ বছর মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় মেধাক্রমে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছেন সজিব চন্দ্র রায়। তিনি নীলফামারীর সৈয়দপুর কারিগরী কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন।

মেডিকেল ভর্তিতে দেশের শীর্ষে থাকার প্রতিক্রিয়ায় সজিব চন্দ্র রায় বলেন, এ রেজাল্টের কারণে আমি প্রথমেই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে চাই আমার সৃষ্টিকর্তার কাছে, এরপর আমার বাবা-মায়ের কাছে। এরপর আমি কৃতজ্ঞ থাকতে চাই আমার শিক্ষক ও গুরুজনদের কাছে।

মেডিকেলে ভর্তি প্রসঙ্গে সজিব বলেন, ছোটবেলা থেকেই আমার স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হওয়া। আপনারা সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে আমি ভবিষ্যতে ভালো ডাক্তার হয়ে দেশের মানুষের উপকার করতে পারি।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।