সিনেটে ছাত্রদের অধিকার আদায়ে কাজ করবো: শোভন


ঢাবি টাইমস
Published: 2019-06-14 02:27:46 BdST | Updated: 2019-07-21 06:48:22 BdST

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি শোভন তাকে সিনেটে ছাত্র প্রতিনিধি করে পাঠানোয় ডাকসুর প্রত্যেক সদস্যকে, বিশেষ করে জিএসকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

“যেহেতু ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবে আমাকে সিনেটে মনোনীত করা হয়েছে, আমি ছাত্রদের অধিকার আদায়ের জন্য, ছাত্রদের সুযোগ-সুবিধার জন্য আমি কাজ করবো এবং তাদের কথা আমি সিনেটে বলব।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটের সদস্য হয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস।

এই দুইজন ডাকসু ভোটে নির্বাচিত না হলেও ডাকসুর ২৫ জন সদস্য ও সম্পাদক মিলে তাদেরকে ডাকসুর পক্ষ থেকে সিনেট সদস্য বানানোর জন্য ভিসি বরাবর আবেদন করলে তা মঞ্জুর করা হয়।

ডাকসু থেকে ৫ জন সিনেট সদস্যের অন্যরা হলেন ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর, জিএস গোলাম রাব্বানী এবং ডাকসু সদস্য তিলোত্তমা শিকদার।

সর্বাধিক ভোট পেয়ে ডাকসুর এজিএস নির্বাচিত হলেও সাদ্দাম হোসেন সিনেট সদস্য হন নি।

এ বিষয়ে সাদ্দাম বলেন, "নারীদের ক্ষমতায়নের বৃহত্তর লক্ষ্যকে সামনে রেখে একজন মেয়েকে সিনেট সদস্য হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে। রাজনৈতিক উদারতার বহিঃপ্রকাশ হিসেবে নুরুল হক নুরকেও মনোনীত করা হয়েছে।"

ডাকসুর জিএস ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, ডাকসুর ২৫ জন সদস্যের মতামত অর্থাৎ ভোটাভুটির ভিত্তিতে সিনেটের ৫ জন প্রতিনিধি নির্বাচন করার কথা। সেই অনানুষ্ঠানিক ভোটের সমীকরণে ডাকসু ভিপি মাত্র ১ ভোট পেয়েছিলেন সিনেটে প্রতিনিধিত্ব করার যোগ্যতা হারিয়েছিলেন। কিন্তু ভোটে নিরঙ্কুশ ব্যবধানে জয়ী হয়েও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মতামতের উপর শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে স্বীয় পদটি ছেড়ে দিয়ে ছোটভাই নুরকে জায়গা করে দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন।

তিনি বলেন, ভোটে জিতেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিমত ও ভিপি পদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ উদারতার এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো বলে আমি মনে করি।

সিনেট সদস্য হিসেবে তাদেরকে মনোনীত করার চিঠি বৃহস্পতিবার বিকালে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাবি ভিসি মো. আখতারুজ্জামান বলেন, পাঁচজন ছাত্র প্রতিনিধি ঢাবির সিনেট সদস্য হিসেবে মনোনীত হয়েছেন। ডাকসু বহির্ভূত দুইজন সদস্যের ব্যাপারে তিনি বলেন, এটা হতেই পারে। ডাকসুর যারা প্রতিনিধি আছে তারা চাইলে এটা হতে পারে।

ডাকসুর গঠনতন্ত্র রয়েছে, ডাকসু থেকে ৫ জন সিনেটে ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবে প্রেরণ করার।

আগামী ২৬শে জুন প্রথমবারের মতো তারা সিনেট অধিবেশনে যোগ দেবেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।