জবির বির্তর্কিত প্রধান প্রকৌশলীকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি!


Dhaka
Published: 2019-11-18 22:01:18 BdST | Updated: 2019-12-05 21:19:26 BdST

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) প্রধান প্রকৌশলী পদে (ভারপ্রাপ্ত) দায়িত্ব থেকে সুকুমার চন্দ্র সাহাকে অব্যাহতি দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন। বর্তমানে তিনি একই দপ্তরে মূল পদবী উপ-প্রকৌশলী হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন। এদিকে প্রধান প্রকৌশলীর পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিও দিয়েছেন প্রশাসন।

১৮ই নভেম্বর বিকাল থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। জানা গেছে, দায়িত্ব প্রাপ্ত সুকুমার চন্দ্র সাহার বিরুদ্ধে অভিযোগ ও অনিয়মের শেষ নেই। ঠিক সময়ে কখনো অফিসে করেন না এই বির্তর্কিত কর্মকর্তা।

অফিসে আসলেও অফিস থাকতেন না । বিভিন্ন দপ্তরে দপ্তরে ঘুরে বেড়াতেন। যতক্ষণ দপÍরে থাকতেন তার পছন্দের লোকজন নিয়ে আড্ডা দিতেন। সুযোগ পেলে উপাচার্যে রুমে গিয়ে বসে থাকতেন। সুযোগ-সুবিধা ভোগ করার জন্য উনার কাছে তোষামোদ করতেন। আবার পিছনে উপাচার্যের সমালোচনাও করতেন। আবা তার প্রকৌশষলী দপ্তরে কর্মচারীদের উপর নির্যাতন ও প্রভাব বিস্তার করতেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়েরীতে তার আসল পদবী লুকিয়ে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত পদবি ব্যবহার করেছেন। যা নিয়ম বহির্ভূত ।

এছাড়া তিনি নিজের বাসার বাজার ও প্রয়োজনীয় সব কাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মচারী দিয়ে করাতেন বলে অভিযোগ উঠেছে। কোন কর্মচারী তার এসব অনিয়মের কথা অমান্য করলে তাকে অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করতেন। তাছাড়া নিজের পরিচিত লোক দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ধরনের টেন্ডার ও বিভিন্ন মালামাল ক্রয়ের কাজ ভাগিয়ে নিতেন বলে ও অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি জবি ছাত্রলীগের সাবেক নেতা তার অনিয়মের বিরুদ্ধে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এসব অনিয়ম করে তিনি অনেক টাকার মালিকও হয়ে গেছেন। বর্তমানে তিনি শান্তি নগরে বিলাসবহুল ফ্ল্যাট ক্রয় করে বসবাস করেন বলেও জানা গেছে।

এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো: ওহিদুজ্জামান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থের কথা বিবেচনা করা সুকুমার চন্দ্র সাহাকে চলতি দায়িত্ব (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান প্রকৌশলী থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। কি কারণে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে এসব বিষয়ে তিনি কিছু বলতে চাননি।