ঢাবিতে ‘আমি নির্ভয় আমি অদম্য’ কর্মশালা অনুষ্ঠিত


ঢাবি টাইমস
Published: 2020-01-25 00:41:34 BdST | Updated: 2020-09-20 20:26:05 BdST

'নারী অদম্য নারী নির্ভয় একসাথে গাই নারীর জয়’ এ স্লোগানকে ধারণ করে ছাত্রীদের আত্মরক্ষার কৌশল জানাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ‘আমি নির্ভয়, আমি অদম্য’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সুইমিংপুলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিমু পরিবহণের যৌথ উদ্যোগে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

এ কর্মশালায় প্রায় ৩ শতাধিক ছাত্রী অংশগ্রহণ করেন।  পরবর্তীতে আর একটি কর্মশালার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীদের সনদ তুলে দেয়া হবে।

কর্মশালায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম, ডাকসুর এজিএস ও ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, পর্বতারোহী নিশাত মজুমদার, জাতীয় অ্যাথলেট শিরিন সুলতানা,গণমাধ্যম কর্মী শরাফত হোসেন, কারাতে ট্রেইনার ও গণমাধ্যম কর্মী ইশতিয়াক আহমেদ, কারাতে ট্রেইনার নয়না চৌধুরী, ডাকসু সদস্য তিলোত্তমা শিকদার, ফরিদা পারভীন, মাহমুদুল হাসান, রোকেয়া হল ছাত্র সংসদের জিএস সায়মা আক্তার প্রমিসহ অনেকে বক্তব্য রাখেন। কর্মশালায় ঢাবির বিভিন্ন হলের ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করেছেন।

কর্মশালায় অধ্যাপক ড.সাদেকা হালিম বলেন, নারীদের আত্মরক্ষার জন্য কৌশলগুলো শেখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ডাকসু এ আয়োজন করেছে, এজন্য ডাকসুকে সাধুবাদ জানাই।

তিনি বলেন, আমাদের সমাজে মনে করা হয়, নারীরা হবে ডলের মতো। নারীরা জোরে কথা বললে দোষ, হাসলেও দোষ। আরো কত কি? সামাজিক অনেক রীতিনীতি দিয়ে নারীদের পিছিয়ে রাখার চেষ্টা করা হয়।

তিনি আরো বলেন, আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উন্মুক্ত ক্যাম্পাস। আমার কাছে মনে হয়, কিছু কিছু জায়গায় বিধিনিষেধ আরোপ করা উচিত। তাহলে অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটবে না।

ছাত্রীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তোমাদের মাইণ্ড সেটআপ করতে হবে। তুমি মানুষ এটা প্রমাণ করতে হবে। মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে হবে। ঘটনা যাতে ঘটতে না পারে, সেব্যাপারে আগে থেকে সতর্ক হতে হবে।

ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন বলেন, লিঙ্গ বৈষম্যে রুখে দিতে আমাদের এ আয়োজন। একটি ছেলে যেসব সুবিধা পায়, একজন মেয়ে সেসব সুবিধা না পাওয়া পর্যন্ত আমাদের লড়াই করে যেতে হবে।

তিনি বলেন, ঢাবিতে সেক্সুয়ালি হেরাজমেন্ট কোর্ট গঠন করতে হবে। এব্যাপারে অতিদ্রুত প্রশাসনকে পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানাই।

তিনি আরো বলেন, ঢাবির টিএসসির সুইমিং পোলটি সংস্কার করে ছাত্রীদের জন্য উন্মুক্ত করতে ঢাবি প্রশাসনকে প্রস্তাব করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলবো।

ছাত্রীদের উদ্দেশে সাদ্দাম বলেন, আত্মরক্ষার কৌশল আপনাদের আত্মমর্যাদা দিবে, নিজেদের রক্ষা করতে সাহায্য করবে। আমরা চাই এটির ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে।

কর্মশালার সার্বিক তত্ত্বাবধানে থাকা ডাকসু সদস্য ও সিনেট সদস্য তিলোত্তমা শিকদার বলেন, নারীর ক্ষমতায়নে দেশ যখন এগিয়ে চলছে, তখন সামাজিক ব্যাধি হিসেবে সামনে এসেছে ধর্ষণ। সমাজ যখন এগিয়ে চলছে, তখন কেন নারীদের মুক্তির কথা বলতে হচ্ছে?

তিনি বলেন, নিজেদের আত্মরক্ষার জন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। একজন নারী সমাজে এগিয়ে যাবে তার নিজের পরিচয়ে, সেরকম একটি সমাজ আমরা স্বপ্ন দেখছি।

ছাত্রীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, নারীদের নারীমঞ্চ গড়ে তুলতে হবে। যাতে নিজেরা নিজেদের রক্ষা করতে পারি।

জাতীয় অ্যাথলেট শারমিন সুলতানা বলেন, নারীর জন্য হোক সুন্দর সমাজ। নারীকে শারীরিক নির্যাতন থেকে রক্ষা পেতে আগে মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে হবে।

পর্বতারোহী নিশাত মজুমদার বলেন, আমরা শুধু সহ্য করে যাবো? না, আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে, নিজেদের শক্ত হতে হবে। নারী দুর্বল নয়, নারী পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী।