রেজিমেন্ট ট্রেনিং ক্যাম্পে যোগ দিতে গোপালগঞ্জ যাচ্ছে যবিপ্রবি বিএনসিসি


মোসাব্বির হোসাইন
Published: 2018-01-13 23:50:55 BdST | Updated: 2018-01-17 03:23:02 BdST

আগামী সোমবার রেজিমেন্ট ক্যাম্পে যোগ দিতে গোপালগঞ্জ যাচ্ছে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) বিএনসিসি ইউনিট। ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার জন্য সব ধরনের প্রশিক্ষন ও প্রস্তুতি ইতমধ্যে শেষ হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র অরগানাইজেশন যা সর্বদা সক্রিয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিঠ্বার সূচনালগ্ন থেকেই যবিপ্রবি বি এন সি সি প্রতিঠ্বিত হয়েছে। প্রতিঠ্বার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের সাথে মিলিত হয়ে বিভিন্ন প্রকার সামাজিক ও উন্নয়নমূলক কাজে অংশগ্রহন করছে যাতে করে সবার কাছ থেকে ঈর্ষনীয় সুনাম অর্জন করেছে।

আগামী ১৫ থেকে ২৪ জানুয়ারী গোপালগঞ্জ অনুঠ্বিত হবে রেজিমেন্ট ক্যাম্প। ক্যাম্পে যোগদানের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ হয়েছে।

ক্যাডেট সার্জেন্ট রাসেল আজাদ ক্যাম্পাস টাইমসকে বলেন, "গোপালগঞ্জ অনুঠ্বিত ক্যাম্পে যাওয়ার সব প্রস্তুতি আমরা ইতমধ্যে শেষ করেছি,এখন শুধু যাওয়ার অপেক্ষা। উক্ত ক্যাম্পে আমাদের ১১ জন ক্যাডেট যোগদান করবে।ক্যাম্প থেকে আমাদের ক্যাডেটরা নতুন কিছু শিখবে যা তাদের পরবর্তীতে অনেক কাজের সহায়ক হবে।"

ক্যাডেট সার্জেন্ট রাসেল আজাদ আরও জানান, গত ১০-১৭ নভেম্বর যশোরের চাঁচড়াতে অনুঠ্বিত ক্যাপসুল ক্যাম্পে আমরা আমাদের যোগ্যতা প্রমান করেছি, সেখানে সকল ইউনিটের মধ্যে সব ধরনের প্রতিযোগীতায় আমরা চ্যাম্পিয়ন হবার গৌরব অর্জন করেছি,ইনশাআল্লাহ এবার গোপালগন্জের রেজিমেন্ট ক্যাম্পেও আমার যোগ্যতার শতভাগ প্রমান দিতে পারব বলে আশা করছি।"

এবারের ক্যাম্পের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চূড়ান্তভাবে ১১ জনকে বাছাই করা হয়েছে।তাদের মধ্যে একজন সি ইউ ও, দুইজন ক্যাডেট ল্যান্স কর্পোরাল আর বাকী আট জন ক্যাডেট।

যবিপ্রবি বিএনসিসি এয়ার উইয়ের অধীনে পরিচালিত হয়, প্রতি সপ্তাহে বৃহস্পতিবার ক্যাম্পাসে নিয়মিত ক্লাস ও প্রশিক্ষন হয়।ক্লাস পরিচালনা করেন যশোর বিমান বাহিনীর একজন অফিসার।

গত ৯ ও ১০ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় সক্রিয়ভাবে শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করে বিএনসিসি। পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সাথে তারা আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় বিশেষ ভূমিকা পালন করে। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সার্বিক সহযোগীতা করে বি এন সি সি র এ ইউনিট। শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নয়, ক্যাম্পাসের বাইরে সব কেন্দ্রে তারা সমানভাবে দায়িত্ব পালন করে।তাদের এ রকম সহযোগীতা মূলক কর্মকান্ডে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষার্থী সবাই সন্তুষ্ট।

এইচজে/ ১৩ জানুয়ারি ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।