মাধ্যমিকের ৮০ হাজার আসনে ৫ লাখ শিক্ষার্থীর আবেদন


Dhaka
Published: 2020-12-28 19:07:54 BdST | Updated: 2021-01-28 11:59:51 BdST

দেশের সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির অনলাইন আবেদন কার্যক্রম রোববার (২৭ ডিসেম্বর) বিকাল ৫টায় শেষ হয়েছে। এই আবেদনের মাধ্যমে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় ৫ লাখ শিক্ষার্থীর আবেদন পড়েছে।

রোববার (২৭ ডিসেম্বর) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মাউশি সূত্রে জানা গেছে, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত ৮০ হাজার শূন্য আসনের জন্য ৫ লাখের কাছাকাছি শিক্ষার্থীর আবেদন এসেছে। আজ বিকেল ৫টায় আবেদনের সময় শেষ হলেও আবেদন ফি জমা দেওয়া যাবে রাত ১২টা পর্যন্ত। এর ফলে মোট আবেদন সংখ্যা আরও কিছুটা বৃদ্ধি পেতে পারে।

এ বিষয়ে মাউশির পরিচালক (মাধ্যমিক) মো. বেলাল হোসাইন গণমাধ্যমকে বলেন, সারাদেশের সব সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এবার একযোগে অনলাইন আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়েছে এবং একযোগে শেষ হচ্ছে। এ পর্যন্ত সাড়ে পাঁচ লাখের কাছাকাছি আবেদন জমা হয়েছে। অনেকে এক বিদ্যালয়ে একাধিক শিফটে আবেদন করেছে।

এদিকে মাউশি থেকে জানা গেছে বিদ্যালয়গুলোতে ভর্তির জন্য আগামী ৩০ ডিসেম্বর লটারি অনুষ্ঠিত হবে। আর লটারির কাজটি হবে অনলাইনে সফটওয়্যার ব্যবহার করে। ওই দিন বিকেলেই ফলাফল প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে।

ঢাকা মহানগরীর ভেতরে ৩৯টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এই বিদ্যালয়গুলোতে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত মোট আসন আছে সাড়ে ১১ হাজারের মতো। এর সঙ্গে জাতীয়করণ হওয়া আরও দুটি বিদ্যালয় যুক্ত হচ্ছে। এসব বিদ্যালয়গুলোতে মাউশির অধীন কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপনায় ভর্তির কাজটি হয়ে থাকে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও মাউশি এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে বিদ্যালয়গুলোকে এ, বি এবং সি- মোট তিনটি ভাগে ভাগ করে ভর্তির কাজ করা হবে। একজন শিক্ষার্থী একটি ভাগের পাঁচটি বিদ্যালয়ে ভর্তির পছন্দক্রম দিতে পারবে। এখান থেকে লটারির মাধ্যমে একটি বিদ্যালয় নির্বাচন করা হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর থেকে জানা গেছে, লটারির স্বচ্ছতায় বিষয়টিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ ভর্তিতে যে কোনো ধরনের অনিয়ম এড়াতে তিন স্তরের কমিটি কাজ করবে। এ ছাড়া স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষক ও অভিভাবক প্রতিনিধি আলাদাভাবে ভর্তি প্রক্রিয়া দেখভাল করবে।