ছাত্রলীগ সভাপতি ও সা. সম্পাদকের ফেসবুক একাউন্ট নিয়ে আইটি দুর্বৃত্তদের ষড়যন্ত্র


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-08-28 20:34:06 BdST | Updated: 2019-09-22 08:29:00 BdST

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর ফেসবুক আইডি নিয়ে ষড়যন্ত্রে মেতেছে আইটি দুর্বৃত্তরা। 

২৮ আগস্ট সোমবার গোলাম রাব্বানীর ফেসবুক আইডি হ্যাক করে বন্ধ করে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা এবং তার নামে নতুন আইডিও খুলেছে।

ছাত্রলীগের ২৯তম কাউন্সিলের একদিন আগেও গোলাম রাব্বানীর আইডি হ্যাক করা হয় এবং  ৩১ জুলাই ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার কিছুক্ষণ পূর্বে হ্যাক করা হয় সভাপতি শোভনের একাউন্ট।

রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ক্যাম্পাসটাইমস ডট প্রেসকে জানান, তার নামে এখন একাধিক ফেসবুক একাউন্ট দুর্বৃত্তরা চালাচ্ছে এবং তার নামে যে একটি আসল একাউন্ট রয়েছে তা রিপোর্ট করে এক্টিভিটিজও কমিয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা 

তিনি বলেন, এখন আমি একাউন্ট খুললেই তা রিপোর্ট হচ্ছে এবং বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। 

সাধারণ সম্পাদকের সুত্র বলছে, তার একাউন্টটি 'দুখু মিয়া' নামে একটি একাউন্টের মাধ্যমে হ্যাক করা হয়েছে। শিগিগিরই আইডি উদ্ধার করা হবে বলে আশা তাদের।  

এদিকে, ফেসবুক ঘেটে দেখা গেছে শোভন ও রাব্বানির নামে প্রায় ১০০ ফেসবুক একাউন্ট ও পেজ রয়েছে। যা সব দুর্বৃত্তদের হাতে রয়েছে। 

এর আগে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাসের ফেসবুক আইডিও রিপোর্ট করে বন্ধ করে দেয় আইটি দুর্বৃত্তরা। 

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ক্যাম্পাসটাইমসকে বলেন, 'এরকম ষড়যন্ত্র চলতে থাকলে আইসিটি আইনে ব্যবস্থা নিতে তারা বাধ্য হবেন।'  

ভুয়া ফেসবুক আইডিতে বিব্রত ঢাকা দক্ষিণ ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদি

নিজের নামে একাধিক ভুয়া ফেসবুক আইডিতে বিব্রত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদি হাসান।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি পদ পাওয়ার সাথে সাথে তার নামে খোলা হয়েছে একাধিক ফেসবুক পেজ ও একাউন্ট। যার কারণে নিয়মিত বিব্রত হতে হচ্ছে এই ছাত্রলীগ নেতাকে।

সোমবার সন্ধ্যায় মেহেদি সাংবাদিকদের জানান, 'এসব ভুয়া আইডির কারণে অনেকে আমার আসল একাউন্ট পাচ্ছেন না। এবং ভুয়া আইডি থেকে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়ানোয় অনেকেই আমার বিষয়ে ভুল ধারণা করছেন।'

তিনি বলেন, সম্প্রতি একটি ভুয়া আইডি থেকে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আমার এবং সাধারণ সম্পাদক জুবায়েরের একটি ছবিকে এডিট করে শুধু আমার ও প্রধানমন্ত্রীকে রেখে আপলোড দেয়া হয়। এতে অনেকেই ভুল ধারণা করছেন। বলছেন, আমি নাকি আমার সাধারণ সম্পাদককে এডিট করে ছবি থেকে কেটে দিয়েছি। যদিও ওই আইডি আমি চাইলাই না। যা একটি ভুয়া একাউন্ট।

যারা ভুয়া আইডিগুলো চালাচ্ছেন মেহেদি তাদের আইডিগুলো বন্ধ করে দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন। অন্যথায় আইনি ব্যাবস্থা নেয়া হলে বলে জানান এই নেতা।

বিদিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।