জাবি শিক্ষার্থীর তৈরী অ্যাপসে মিলবে ধর্ষণ থেকে মুক্তি


JU
Published: 2020-01-27 11:58:35 BdST | Updated: 2020-02-17 14:54:35 BdST

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজির (আই আই টি) ৪৬তম ব্যাচের তিন শিক্ষার্থী ALLY নামের একটি অ্যাপস তৈরী করেছেন। যে অ্যাপসটি নারীদের ধর্ষণ রোধে কাজ করবে। এছাড়াও হ্যারেজম্যান্ট, ছিনতাই প্রতিরোধসহ যে কোন বিপজ্জনক মূহুর্তে সুরক্ষা দিতে কাজ করবে।

রবিবার (২৬ জানুয়ারি) এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক আয়োজিত সফটওয়্যার প্রদর্শনীতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘আইআইটি অ্যাড্রয়েট’ এর এই অ্যাপসটি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

এতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজির (আই আই টি) ৪৬ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী শাহীন বাশারের নেতৃত্বে অংশ নেয় একই ব্যাচের মেহেদী হাসান রুম্মান এবং ৪৭ তম ব্যাচের শাহরিয়ার ইসলাম হিমেল।

শাহীন বাশার জানান, প্রতিযোগিতায় দেশের ২২টি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দল এই প্রদর্শনীতে অংশ নেয়।

তিনি আরও জানান, ‘আমরা প্রতিযোগীতায় যে অ্যাপসটি প্রদর্শন করেছি তার নাম ALLY। এই অ্যাপসটির নারীদের ধর্ষণ রোধে কাজ করবে। এছাড়াও হ্যারেজম্যান্ট, ছিনতাই প্রতিরোধসহ যে কোন বিপজ্জনক মূহুর্তে সুরক্ষা দিতে কাজ করবে।’

কিভাবে এসব কাজ করবে অ্যাপস? এমন প্রশ্নে এই অ্যাপস আবিস্কারক বলেন, ‘আমাদের অ্যাপসে অনেকগুলো ফিচার থাকবে। তার মধ্যে যদি একজন ইউজার কোন অপরিচিত জায়গা দিয়ে যায় অথবা কোন বিপদের পড়ার আশংকা করলে অ্যাপটির ড্যানজার মুড অন করে রাখতে হবে। পরবর্তীতে কোন প্রকার শ্যাকিং কিংবা হেল্প সাউন্ড শুনলে এপটি থেকে অটোমেটিক্যালি তার বিশ্বস্ত নাম্বারে কল, ম্যাসেজ+ইমেইল (কারেন্ট লোকেশন সহ) চলে যাবে।’

শাহীন বাশার আরও বলেন, এছাড়া ইউজারের মোবাইল থেকে অটোমেটিক্যালি লোকেশন শেয়ার হবে, যা তার বিশ্বস্ত ব্যাক্তি অ্যপের মাধ্যমে সরাসরি দেখে ভিক্টিমের অবস্থান জানতে পারবে। এছাড়া অ্যাপসে গোপনে রেকর্ড করা, ছবি তোলার অপশন রয়েছে।’

জাবির এই শিক্ষার্থী আরও জানান, এই অ্যাপসের মাধ্যমে কাছের পুলিশ অথবা র‍্যাবের সাথে কানেক্ট হতে পারবে। এছাড়া পুলিশ ও র‌্যাবের মোবাইল নাম্বার+লোকেশন জানতে পারবে। এছাড়া জরুরী প্রয়োজনে ৯৯৯ এ কল দেয়া ও এম্বুলেন্স এবং ব্লাড ডোনার খুঁজতে পারবে।’

‘আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে অ্যাপসটি গুগলের প্লে স্টোরে পাওয়া যাবে।’

প্রসঙ্গত, এর আগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরিবহণ সেবা সহজ করতে শাহীন বাশার নামের এই শিক্ষার্থী JU Transport নামের একটি অ্যাপস তৈরী করেন।