ক্যাম্পাসে ‘মোরাল পুলিশিং’ না করার আহ্বান ডাকসু এজিএস সাদ্দামের


ঢাবি টাইমস
Published: 2019-09-01 23:55:16 BdST | Updated: 2019-09-22 07:25:31 BdST

ডাকসুর অজুহাতে টিএসসির সংগঠনগুলোর বরাদ্দ বাড়ানোর পায়তারা বন্ধ করতে হবে। ডাকসুর সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ‘মোরাল পুলিশিং’ না করার দাবি জানিয়েছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) প্রাঙ্গণে আজ রোববার বিকেলে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় সাদ্দাম হোসেন এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ডাকসু ‘বঙ্গবন্ধুর সংস্কৃতি ভাবনা ও স্বাধীনতার গান’ শীর্ষক এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা জানেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কীভাবে নিজেদের জীবন যাপন করতে হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো ধরনের নীতি, ধর্ম কিংবা সাংস্কৃতিক পুলিশি চলবে না। জাতি-ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে সব মানুষের সাংস্কৃতিক স্বাধীনতা নিশ্চিতের জন্য আমরা সোচ্চার থাকব।’

,

অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও ডাকসুর সভাপতি মো. আখতারুজ্জামান। নিজের বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের সমন্বিত করে নানা ধরনের সহশিক্ষামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করবে, ডাকসুর কাছে এটাই প্রত্যাশা ছিল। বঙ্গবন্ধু যেসব গান শুনতেন, সেগুলো ছিল আমাদের ভাষা আন্দোলন, স্বাধীনতার চেতনার গান। গানগুলোতে বাঙালি সংস্কৃতির উদারনৈতিক চেতনার ছাপ থাকত।’

ডাকসুর সংস্কৃতি সম্পাদক আসিফ তালুকদারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বাংলা একাডেমির সাবেক মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বিশ্বজিৎ ঘোষ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন ও ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।