রিমান্ড শেষে অসুস্থ ছাত্রদল নেতার হাসপাতালে মৃত্যু


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-03-12 09:47:03 BdST | Updated: 2018-12-11 02:15:36 BdST

তেজগাঁও থানা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সহ-সভাপতি জাকির হোসেন মিলন পুলিশের নির্যাতনে মারা গেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। অাজ সোমবার সকালে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

গত ৬ মার্চ প্রেসক্লাবে বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে ফেরার পথে শাহবাগ থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। শনিবার রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের সময় তাকে মারধর করা হয়েছে। পুলিশের নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে।

শাহবাগ থানার ওসি অাবুল হাসান বলেন, রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের পর সুস্থ অবস্থায় তাকে অাদালতে পাঠানো হয়েছে। তার ওপর কোনো নির্যাতন চালানো হয়নি।

ছাত্রদলের তীব্র নিন্দা
তেজগাঁও থানা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সহ-সভাপতি জাকির হোসেন মিলনের মৃত্যুতে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান আসাদ।

ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের দফতর সম্পাদক মো. আবদুস সাত্তার পাটোয়ারীর পাঠানো এক বিবৃতিতে নেতারা বলেন, এ সরকার এখন জেলেও ছাত্রদল নেতাকর্মীদেরকে হত্যার উল্লাসে মেতে উঠেছে। ছাত্রদল নেতা মিলনকে রিমান্ডে নিয়ে যেভাবে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হলো- তা কোনো সভ্য দেশের সভ্য মানুষের কাজ হতে পারে না। আইনকে এখন বিরোধী নেতাকর্মীদেরকে হত্যার জন্য ব‌্যবহার করা হচ্ছে।

তারা আরো বলেন, এসব ঘটনার বিচার একদিন নিশ্চয়ই হবে। যারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এই দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করে অপরাধের সঙ্গে জড়িত প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনা হবে।

নেতারা অবিলম্বে জাকির হোসেন মিলনকে যারা হত্যার দিকে ঠেলে দিয়েছে তাদের গ্রেফতারের দাবি জানান। এছাড়া নিহত জাকির হোসেন মিলনের পরিবারের প্রতিও সমবেদনা জ্ঞাপন করেন তারা।

সংবাদটি ইত্তেফাক থেকে নেয়া 

বিডিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।