যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক গবেষণা সংগঠনের গ্লোবাল ইয়ুথ অ্যাম্বাসেডর সাইফুল্লাহ


Dhaka University Times
Published: 2018-10-12 23:19:58 BdST | Updated: 2018-12-11 02:58:10 BdST

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক শিক্ষা, উদ্ভাবন ও গবেষণামূলক সংগঠন গ্লোবাল সেন্টার ফর ইনোভেশন এন্ড লার্নিং (জিসিএফআইএল) (GLOBAL CENTER FOR INNOVATION AND LEARNING (GCFIL) USA,(www.gcfil.com) এর গ্লোবাল ইয়ুথ অ্যাম্বাসেডর ফর রিসার্চ লিডারশিপ (বাংলাদেশ) (Global Youth Ambassador For Research Leadership (Bangladesh)) এ মনোনিত হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের আহ্বায়ক ও প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাইফুল্লাহ সাদেক।

বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে গবেষণা এবং উদ্ভাবনী চিন্তায় উদ্বদ্ধু করার লক্ষ্যে গবেষণালব্ধ কমিউনিটি প্রতিষ্ঠায় নেতৃত্বের মাধ্যমে অবদান রাখার জন্য এই স্বীকৃতি প্রদান করা হয়েছে তাকে।

এছাড়াও বাংলাদেশের তরুণদের মানসিকতার উন্নয়নে ভবিষ্যতে এই উদ্যোগকে আরো বোগবান করতে একত্রে কাজ করার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে সংগঠনটি।

২০১৮-২০১৯ সেশনের জন্য সাইফুল্লাহ সাদেক কে এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়৷ এসময়ের মধ্যে তিনি ঢাকা ইউনিভার্সিটি রিসার্চ সোসাইটি (ডিইউআরএস) এর মতো বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গবেষণা সংগঠন প্রতিষ্ঠা এবং শিক্ষার্থীদের গবেষণায় উদ্বদ্ধু করতে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সংগঠন GCFIL এর সহযোগিতায় কাজ করবেন।

এই অ্যাওয়ার্ডের আওতায় আগামী ২০১৯ সালের জুনের দিকে সাদেক যুক্তরাষ্ট্র সফর করবেন এবং সেখানকার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কিভাবে গবেষণা সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালনা করে সে সম্পর্কে অভিজ্ঞতা নেয়ার সুযোগ পাবেন।

এবিষয়ে সাইফুল্লাহ সাদেক বলেন, ক্ষুদ্র এ জীবনে কখনো অর্জন নিয়ে ভাবিনি। নিজের যা ভালো লাগে, যখন, যেখানে আমার অনুভূতি সুন্দর মনে হয় সেখানে মন উজাড় করে দিয়ে কাজ করি। কিন্তু এই পথে যখন অনাকাঙ্ক্ষিত সম্মান এবং স্বীকৃতি পাওয়া যায় তার অনূভূতি অন্যরকম। এমন একটি স্বীকৃতি আমার কাজের স্পৃহা বৃদ্ধি পাবে।

তিনি বলেন, আসলে আমি জানি না কি করতে পেরেছি৷ তবে চেষ্টা করছি। নিজের গুরুত্বপূর্ণ সময়, চিন্তা, শ্রম ত্যাগ করছি৷ শত ব্যস্ততার মাঝেও আমি আমাদের তরুণদের সঙ্গে এই কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকি। প্রখর বোধসম্পন্ন তরুণদের দলই আমার কাজের শক্তি-প্রেরণা। তাই প্রকৃত অর্থে এই স্বীকৃতি Dhaka University Research Society (DURS)এর প্রত্যেকটি সদস্যের। আসলে তারাই হলেন একেকজন গ্রেট অ্যাম্বাসেডর।

বর্তমানে ঢাকা ইউনিভার্সিটি রিসার্চ সোসাইটির মতোই দেশের প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের রিসার্চ সোসাইটি প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করছেন তিনি। ইতোমধ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এবং বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস রিসার্চ সোসাইটি যাত্রা করেছে।

সাদেক বলেন, সারা দেশে তরুণদের মাঝে এমন বোধসম্পন্ন প্লাটফর্ম তৈরি হোক। সস্তা কাজ আর সস্ত জনপ্রিয়তার বাইরে এসে গভীর কিছু নিয়ে ভাবার মতো প্রজন্ম তৈরি হোক সমাজে তথা দেশে। যারা হবেন আগামীর উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পথে প্রাণপুরুষ। যারা পৃথিবী জুড়ে উদ্ভাবনী চিন্তা, সৃজনশীলতা আর গবেষণা দিয়ে ছড়িয়ে পড়বে, বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে।

প্রসঙ্গত, সাইফুল্লাহ সাদেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষ করে এখন একই বিভাগে এমফিল করছেন। পেশায় একজন সাংবাদিক হলেও গবেষণার দিকে তার মনোযোগ।

২০১৬ সালের ৬ ডিসেম্বর সাইফুল্লাহ সাদেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু সচেতন শিক্ষার্থী নিয়ে প্রতিষ্ঠা করেন বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রথম গবেষণা সংগঠন ঢাকা ইউনিভার্সিটি রিসার্চ সোসাইটি।

সংগঠনটি অল্প সময়ের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। এখন প্রায় এক হাজার সদস্য নিয়ে এই সংগঠন তরুণদের গবেষণা সচেতন করতে কাজ করে যাচ্ছে।

নিয়মিত রিসার্চ সেশন, কর্মশালা, দেশ-বিদেশের প্রসিদ্ধ গবেষকদের নিয়ে বিভিন্ন সভা-সেমিনার, সিম্পোজিয়াম আয়োজন, সাপ্তাহিক ও মাসিক রিসার্চ সেশন আয়োজন, নিয়মিত টিমওয়ার্ক দিয়ে তরুণদের মাঝে গবেষণাকে জনপ্রিয় করে তুলতে ভূমিকা রাখছে ঢাকা ইউনিভার্সিটি রিসার্চ সোসাইটি।

অন্যদিকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের তরুণদের শিক্ষা, গবেষণা, উদ্ভাবনী মনোভাব সৃষ্টি ও তরুণদের নেতৃত্বগুণ, যোগাযোগ দক্ষতা বৃদ্ধি উন্নত মানসিকতা বিকাশে গ্লোবাল সেন্টার ফর ইনোভেশন এন্ড লার্নিং, যুক্তরাষ্ট্র কাজ করছে৷

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।