করোনা প্রতিরোধে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের যেসব পদক্ষেপ


টাইমস ডেস্ক
Published: 2020-03-25 18:03:09 BdST | Updated: 2020-06-03 03:08:00 BdST

করোনাভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে বিমানবন্দর বন্ধ, ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা, সীমান্ত যোগাযোগ বন্ধসহ বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। একনজরে দেখে নেবো সেসব পদক্ষেপ।

দেশের সীমান্ত পর্যটকদের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। সীমান্ত খোলা আছে দেশের মানুষের জন্য। বিদেশী ক্রুজ জাহাজকে বন্দরে অবস্থান করতে হবে অন্তত ৩০ দিন। পর্যটকদের জন্য সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে ব্রাজিল। যা অব্যাহত থাকবে ১৫ দিন। ব্রাজিল ভেনিজুয়েলা সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন কয়েকশ' অভিবাসী ও শরণার্থী যাতায়াত করেন।

১৮ মার্চ থেকে দুই দেশের মধ্যবর্তী সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা। ক্রোয়েশিয়াও দেশের বাইরে যাত্রী প্রবেশে আরোপ করেছে কড়া নিষেধাজ্ঞা। ডেনমার্ক সব পর্যটক আর বিদেশীদের দেশের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। তবে স্বাভাবিক থাকবে পণ্য সরবরাহ।

আশপাশের ইউরোপীয়ান বিভিন্ন দেশ থেকে বিমান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে জার্মানি। একই পদক্ষেপ নিয়েছে গ্রিস। পাশাপাশি গ্রিসের সমুদ্রবন্দর দিয়ে জাহাজ প্রবেশেও নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। ভারতও সম্প্রতি ঘোষণা দিয়েছে, ভিসা প্রদান বন্ধ করে দেয়ার। এরইমধ্যে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের ভিসা বাতিল করেছে ভারত। মিয়ানমারের সাথেও বন্ধ দেশটির সীমান্ত যোগাযোগ।

২৪ মার্চ পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে বিমান চলাচল বন্ধ করেছে ইরাক। ৩ এপ্রিল পর্যন্ত ৬ কোটি মানুষকে লকডাউন অবস্থায় রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইতালি। ৩১ মার্চ পর্যন্ত পর্যটকদের জন্য সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে মালয়েশিয়া।

করোনা সংক্রমিত দেশগুলো থেকে পর্যটক আগমন বন্ধ করে দিয়েছে মালদ্বীপ। বিদেশিদের ১৪ দিন বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলেছে নেপাল সরকার। দেশটিতে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ অন এরাইভাল ভিসা। ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিল করেছে দ্বীপরাষ্ট্র ফিলিপিন্স।

কার্গো আর ট্রানজিট ফ্লাইট ছাড়া সব ফ্লাইটই বাতিল করেছে কাতার। পোল্যান্ড আর নরওয়ে সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে রাশিয়া। সৌদি আরবও ২ সপ্তাহের জন্য সব ফ্লাইট বন্ধ ঘোষণা করেছে। করোনা আক্রান্ত দেশগুলো থেকে আসা যাত্রীদের দেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সিঙ্গাপুর।

স্থল ও আকাশপথে যাতায়াত বন্ধ করে একই পদক্ষেপ নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও দক্ষিণ কোরিয়া। সীমান্ত যোগাযোগ বন্ধ করেছে স্পেন। ফ্লাইট বন্ধ করবে শ্রীলঙ্কাও। লেবানন, তুরস্ক, সিরিয়া ও ইরাক থেকে ফ্লাইট স্থগিত করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। ৩০দিনের জন্য অযথা ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ব্রিটেন।

করোনা সংক্রমণ আছে, এমন দেশগুলো থেকে যাত্রী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। একটি বিমানবন্দর নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়েছে বিদেশ ফেরত যাত্রীদের জন্য।

এসএম/ ২৫ মার্চ ২০২০