রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার নীতিমালা প্রকাশ


রাজশাহি | Published: 2021-02-09 18:06:48 BdST | Updated: 2021-03-06 04:34:49 BdST

২০২০-২১ শিক্ষা বর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের পরীক্ষা পদ্ধতি ও আবেদনের তারিখ ঘোষণা করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে হওয়া সভায় পরীক্ষা সংক্রান্ত এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

মঙ্গলবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০২০-২১ সেশনে ১ম বর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে পরীক্ষায় শুধুমাত্র ২০২০ সালের এইচএসসি/সমমান ও ‘এ’ লেভেল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া শিক্ষার্থীরাই অংশ নিতে পারবে। পরীক্ষায় এবারও থাকছে না লিখিত এবং সেকেন্ড টাইমের সুযোগ।

ভর্তি পরীক্ষার ইউনিট ও যোগ্যতা

এ (A) ইউনিট: মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র এ ইউনিটে আবেদন করতে পারবে। এই ইউনিটের আওতায় কলা, আইন, সামাজিক বিজ্ঞান ও চারুকলা অনুষদের ২৭টি বিভাগ এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট আছে। আবেদনের জন্য এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.০০ সহ মোট জিপিএ ৭.০০ থাকতে হবে।

বি (B) ইউনিট: বাণিজ্য শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র বি ইউনিটে আবেদন করতে পারবে। এই ইউনিটের আওতায় বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ৭টি বিভাগ ও ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট আছে। আবেদনের জন্য এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৭.৫০ থাকতে হবে।

সি (C) ইউনিট: বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র সি ইউনিটে আবেদন করতে পারবে। এই ইউনিটের আওতায় বিজ্ঞান, কৃষি, প্রকৌশল, জীববিজ্ঞান, ভূবিজ্ঞান, ফিশারীজ এবং ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্সেস অনুষদের ২৬টি বিভাগ আছে। আবেদনের জন্য এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৮.০০ থাকতে হবে।

সকল ইউনিটের জন্য জিসিই ‘ও’ লেভেল পরীক্ষায় ৫টি বিষয়ে এবং ‘এ’ লেভেল পরীক্ষায় অন্তত ২টি বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং উভয় লেভেলে মোট ৭টি বিষয়ের মধ্যে ৪টি বিষয়ে কমপক্ষে ‘বি’ গ্রেড এবং ৩টি বিষয়ে কমপক্ষে ‘সি’ গ্রেড থাকতে হবে।

পরীক্ষার ফি ও আবেদনের সময়সীমা:
আগামী ৭ মার্চে থেকে প্রাথমিক ভাবে অনলাইনে ৫৫ টাকা পরিশোধ করে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন করা যাবে ১৮ মার্চ পর্যন্ত। সেই আবেদনের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের যোগ্যতা অনুসারে প্রতি ইউনিটে ৪৫ হাজার করে মোট ১ লাখ ৩৫ হাজার শিক্ষার্থীকে চুড়ান্ত আবেদনের সুযোগ দেয়া হবে। ১ হাজার ১০০ টাকা (মোবাইল অপারেটরে) পরিশোধের মাধ্যমে সেই আবেদন চলবে ২৩ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ রাত ১২ টা পর্যন্ত।

পরীক্ষার শিফট:
ভর্তি পরীক্ষা ৩টি (A, B, C) ইউনিটে অনুষ্ঠিত হবে। প্রতি ইউনিটে প্রতিদিন ৩ শিফটে ১৫ হাজার করে মোট ৪৫ হাজার ভর্তিচ্ছুর পরীক্ষা গ্রহণ করতে পারবে।

তাছাড়া ভর্তি পরীক্ষাটি তিনটি শিফটে তথা সকাল ৯:৩০ থেকে ১০:৩০ মিনিট, দুপুর ১২ থেকে ১টা এবং বিকেল ৩ থেকে ৪টার মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

পরীক্ষা পদ্ধতি ও সময়সীমা:
বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর(MCQ) পদ্ধতিতে ১ ঘন্টা মেয়াদে ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বহুনির্বাচনি প্রশ্ন থাকবে ৮০ টি। প্রতি প্রশ্নের মান ১.২৫। এতে ৫টি ভুল উত্তরের জন্য ১ নম্বর কাটা যাবে। পরীক্ষায় নূন্যতম পাস নম্বর হবে ৪০।