চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৯


CU Correspondent | Published: 2022-09-05 19:06:45 BdST | Updated: 2022-11-30 13:27:16 BdST

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আবারও সংঘর্ষে জড়িয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুটি গ্রুপ। এতে এক নেতাসহ উভয় গ্রুপের ৯ জন আহত হয়েছেন। শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের অনুসারী ‘সিএফসি’ ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেনের টিপুর অনুসারী ‘সিক্সটি নাইন’ গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়েছে।

সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা প্রশাসন অনুষদের সামনে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। এ ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগের উপ-বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক ও সিএফসি গ্রুপের কর্মী, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র শেখ রাসেল এবং সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মী ও আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মির্জা সফল প্রধান গুরুতর আহত হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল সেন্টারে চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা।

এ ছাড়া উভয় গ্রুপের আরও সাত কর্মী আহত হয়েছেন। তারা হলেন- সিএক্সটি নাইন গ্রুপের ইসলামী ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের আরিফ তানভীর, রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ইমন, একই শিক্ষাবর্ষের ইতিহাস বিভাগের আজহার, সিএফসি গ্রুপের অর্থনীতি বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ইখলাস, সমাজতত্ত্ব বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের আরিফুল ইসলাম, ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের (বিভাগ জানা যায়নি) আজাদ ও সাগর এবং সংস্কৃতি বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের সামিউল হক দীপন।

ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের সামনে মির্জা সফল প্রধানের সঙ্গে একই শিক্ষাবর্ষের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের মেহেদি হাসানের বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে তারা মারামারিতে লিপ্ত হন। এতে মির্জা সফল প্রধান গুরুতর জখম হন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শাহ আমানত হলে সিএফসি ও শাহজালাল হলে সিক্সটি নাইনের কর্মীরা অবস্থান নিয়ে একে অপরের দিকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকেন। কিছুক্ষণ পরে একটি ভাতের হোটেলে ছাত্রলীগের উপ-বিজ্ঞান সম্পাদক শেখ রাসেলের ওপর আক্রমণ করে সিক্সটি নাইনের কর্মীরা।

তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি রেজাউল হক রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর একাধিকবার কল দিলেও সাড়া পাওয়া যায়নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘ছাত্রদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছে। আমরা প্রক্টরিয়াল বডি উপস্থিত আছি। পরিস্থিতি শান্ত রাখার চেষ্টা করছি।’

প্রসঙ্গত, গ্রুপ সিক্সটি নাইন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও সিএফসি গ্রুপ শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।