শিক্ষা ক্ষেত্রে অনেক বাধার দেয়াল রয়েছে: দীপু মনি


DU Correspondent | Published: 2022-08-10 22:50:14 BdST | Updated: 2022-10-05 17:19:01 BdST

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষা ক্ষেত্রে আমরা অনেক বাধা তৈরি করে রেখেছি। বয়সের বাধা, কত সালে পাস করেছে, অনেক রকম বাধার দেয়াল তৈরি করে রেখেছি। তিনি বলেন, ‘এমন মনে হওয়ার কারণ নেই যে, ১৮ বছর বয়সে আমাদের সব ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার সক্ষমতা তৈরি হয়ে যাবে। অথবা তিন বছর পর মনে হতে পারে, আমি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছি— সেটি ভুল ছিল। এই জাতীয় সিদ্ধান্তগুলো পরিবর্তন করা উচিত। আমি আশা করছি, ছাত্রলীগও এবিষয়ে ভাববে।’

বুধবার (১০ আগস্ট) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষককেন্দ্রে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ আয়োজিত বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুনে নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘যে মায়ের চির মমতা আমার অঙ্গে মাখা’ শীর্ষক উন্মুক্ত বক্তব্য প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমার অনুরোধে অ্যাকাডেমিক মাস্টার প্ল্যান করার কথা ভাবছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। আমাদের সব বিশ্ববিদ্যালয়কে বলেছি— অ্যাকাডেমিক মাস্টার প্ল্যান করতে। এটি থাকলে আপনি ঠিক করতে পারবেন, আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশিষ্ট্য কী হবে? কী কী বিষয় পড়াবেন? কেন পড়াবেন? যে বিষয়গুলো পড়াচ্ছেন সেগুলোর চাহিদা আছে কিনা, কীভাবে পড়াবেন? এগুলোর সঙ্গে সমন্বয় করে আপনি একটি ফিজিক্যাল মাস্টার প্ল্যান তৈরি করবেন। প্রধানমন্ত্রী বারবার বলার পর বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ফিজিক্যাল মাস্টার প্ল্যান তৈরি করেছে। তারপরও আমরা দেখি, অপরিকল্পিতভাবে তাদের ধারণ ক্ষমতার বাইরে শিক্ষার্থী ভর্তি করে যাচ্ছে। যার ফলে আবাসন সংকটসহ নানাবিধ সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসন সংকট একটি সমস্যা, কিন্তু আরও অনেক সমস্যা রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে কর্মজগতের সঙ্গে সম্পর্ককে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। আমি বলেছি ইন্ডাস্ট্রি-অ্যাকাডেমিয়া লিঙ্কেজ তৈরি করতে হবে। এর জন্য ইন্ডাস্ট্রিগুলোকে সঙ্গে নিয়ে কারিকুলাম তৈরি করতে হবে। আমাদের শিক্ষার্থীদের সফ্ট স্কিলের অভাব দেখা যায়। এক্ষেত্রে মাধ্যমিক পর্যন্ত আমরা নতুন শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে এসেছি। আর বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিজেদের উদ্যোগ নিতে হবে।’

বঙ্গমাতাকে নিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘‘তৎকালীন ছাত্রলীগ বঙ্গমাতাকে মা হিসেবে পেয়েছিলেন। তিনি আজীবন বঙ্গবন্ধুর ছায়াসঙ্গী ছিলেন। তিনি মরণেও তার সঙ্গী হয়েছিলেন। তিনি বঙ্গবন্ধুকে ছাড়া বাংলাদেশের বেঁচে থাকার কথা কল্পনাও করেননি। বঙ্গবন্ধুকে মেরে ফেলা হলে তিনি ঘাতকদের বলেন, ‘উনাকে (বঙ্গবন্ধু) যখন মেরে ফেলেছো, আমাকেও মেরে ফেলো।’ বঙ্গমাতাকে নিয়ে আরও অনেক জানার আছে, আমরা যেন সেটি করি।’’

সাম্প্রতি গঠিত গণতন্ত্র মঞ্চ নিয়ে দীপু মনি বলেন, ‘‘গতকালকে (মঙ্গলবার) দেখলাম, একটা মঞ্চ হয়েছে। অবশ্য নাম দিয়েছে খাসা ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’। যাদের গণতন্ত্রের ইতিহাস খুবই খারাপ। তাদের সম্ভাব্য নেতার নাম শুনে দেশের জন্য কায়মনোবাক্যে প্রার্থনা করা ছাড়া কিছু দেখছি না। তারপর তারা বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিকে নিয়ে অপপ্রচার শুরু করেছে। তেলের দাম সমন্বয় করার জন্য দাম বাড়ানো হয়েছে। এটি প্রধানমন্ত্রীর দুর্ধর্ষ সিদ্ধান্ত। সব সরকারই নির্বাচনকে সামনে রেখে জনপ্রিয়তার স্বার্থে অনেক ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয়, সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার সাহস পায় না। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দেশের এবং দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সিদ্ধান্ত কঠিন তবে যুগোপযোগী। মধ্য ও নিম্ন-মধ্য আয়ের মানুষের কষ্ট হবে কোন

ও সন্দেহ নেই। তবে দেশের কথা চিন্তা করে আমাদের কষ্ট স্বীকার করে নিতে হবে।’’

ঢাবির ছাত্রলীগ সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন— ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সাদ্দাম হোসেনসহ প্রমুখ।