শৃঙ্খলাবোধের অভাব দেখলে বোন হিসেবে ছাত্রলীগের ভাইদের শাসন করব


Desk report | Published: 2022-05-11 19:38:54 BdST | Updated: 2022-05-29 06:10:16 BdST

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, ‘আমরা যে ছাত্রলীগ করেছি, সেই ছাত্রলীগে শৃঙ্খলাবোধ ছিল। এখন যদি কোথাও ছাত্রলীগে শৃঙ্খলাবোধের অভাব দেখি, তাহলে আমি বোন হিসেবে ছাত্রলীগের ভাইদের কিছুটা শাসন করব। ছাত্রলীগের ভাইয়েরা শুধু স্লোগান দিলে চলবে না। তা–ও আবার অমুক ভাই, তমুক ভাইয়ের নামে স্লোগান কেন? স্লোগান দিতে হলে তা হবে শেখ হাসিনার নামে, স্বাধীনতার নামে আর প্রগতির নামে।’

ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে দীপু মনি বলেন, ‘আমরা শিক্ষিত বেকার তৈরি করতে চাই না। শিক্ষার্থীরা যেন দক্ষ কর্মী হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়ে। এ জন্য কারিকুলামও (পাঠ্যক্রম) সেভাবে তৈরি করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় মানে গবেষণার জায়গা। আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভালো ভালো শিক্ষক আছেন, গবেষক আছেন। তাহলে আমরা কেন শিক্ষার্থীদের যোগ্য করে তৈরি করতে পারব না!’

শিক্ষামন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের সাহিত্য ও দর্শন নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, জয় বাংলা এখন জাতীয় স্লোগান হয়েছে। সম্ভবত ১৯২১ সালে জাতীয় কবির একটি কবিতায় জয় বাংলা কথাটি ছিল। সেখান থেকেই বঙ্গবন্ধু জয় বাংলা কথাটি নিয়ে তিনি নিজের ভাষণে ব্যবহার করতেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সৌমিত্র শেখর। তিনি বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে গত ডিসেম্বরে যোগ দেওয়ার পর থেকেই কিছু সংকট দেখেছেন। সেসব সংকট সমাধানের জন্য চেষ্টা করছেন। শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়ন—এই তিন বিষয় সামনে রেখে তিনি কাজ করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা উন্নয়নের জন্য অন্তত ৫০০ কোটি টাকা প্রয়োজন বলে দাবি করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার হুমায়ুন কবীরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ–উপাচার্য (শিক্ষা) এ এস এম মাকসুদ কামাল, কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ মো. জালাল উদ্দিন ও ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র এ বি এম আনিছুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ত্রিশালের সংসদ সদস্য রুহুল আমিন মাদানী সেখানে উপস্থিত হলেও তিনি শারীরিক অসুস্থতার কারণে চলে যান।