অবৈধ শিক্ষার্থীদের হল থেকে নামিয়ে দিলেন প্রাধ্যক্ষ


RU Correspondent | Published: 2022-07-02 08:59:11 BdST | Updated: 2022-08-14 16:27:21 BdST

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলের বিভিন্ন কক্ষে অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে অবস্থান করা শিক্ষার্থীদের নামিয়ে সেই কক্ষে সিট বরাদ্দপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের উঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (১ জুলাই) রাত ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সোহরাওয়ার্দী হলের প্রথম ব্লক, দ্বিতীয় ব্লক ও তৃতীয় ব্লকে রাত ৯টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে অবস্থান করা শিক্ষার্থীদের নামিয়ে সেই সিটে বিভিন্ন বিভাগের বৈধ শিক্ষার্থীকে ওঠানো হয়েছে। এসময় অবৈধভাবে সিটে থাকা শিক্ষার্থীদের বিছানাপত্র নামিয়ে বৈধ শিক্ষার্থীর বিছানাপত্র তুলে দেন হল প্রশাসন। বিভিন্ন কক্ষে মোট আঠারো জন শিক্ষার্থীকে সিটে ওঠানোর কথা থাকলেও প্রতিবেদনে লেখা পর্যন্ত ১২ জন বৈধ শিক্ষার্থীকে সিটে ওঠাতে পেরেছে হল প্রশাসন।

হলে সিট পেয়ে ১৪৫নং সিটের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আশিকুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, দেড় মাস আগে হলে সিট পেয়েছি। অনেকবার হলে ওঠার চেষ্টা করেছি কিন্তু উঠতে পারিনি। আজকে উঠতে পেরে খুব ভালো লাগছে। ধন্যবাদ হল প্রশাসনকে।

জানতে চাইলে হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, হলের শৃঙ্খলা রক্ষার্থে সব রকমের কাজ করতে চাই। বর্তমানে হলে সিট কেন্দ্রিক সমস্যা জটিল আকার ধারণ করেছে৷ অবৈধভাবে হলে অবস্থান, সিট দখল ও বৈধ শিক্ষার্থী নামিয়ে দেওয়ার মতো ঘটনা ঘটছে। তারই প্রেক্ষিতে বৈধ শিক্ষার্থীদের হলে ওঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যাতে হলে সকল শিক্ষার্থী বৈধভাবে অবস্থান করে সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখে।

আঠারো জন শিক্ষার্থীকেই হলে ওঠানোর কথা জানিয়ে প্রাধ্যক্ষ বলেন, অবৈধভাবে থাকা অনেকে কক্ষে তালা দিয়ে অন্যত্র চলে গেছে। আমরা তাদের ডেকেছি, তারা যদি না আসে তাহলে তালা ভেঙে হলেও বৈধ শিক্ষার্থীদের সিটে তোলা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাধ্যক্ষ পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক ফেরদৌসী মহল বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে বৈধভাবে শিক্ষার্থীদের ওঠানোর বিষয়ে উদ্যোগ নিয়েছে প্রশাসন। হলের সিটে অবস্থান করা নিয়ে কোনো ধরনের জটিলতা সৃষ্টি যেন না হয়, সেজন্য এসব অভিযান চালানো হচ্ছে। কেননা হলগুলোতে বিভিন্ন মহলের প্রভাব খাটিয়ে অনেক শিক্ষার্থীকে অবৈধভাবে অবস্থান করতে দেখা গেছে। ফলে হলের বৈধ শিক্ষার্থীরা সিট না পেয়ে ভোগান্তিতে রয়েছে। আমরা চাই, সবাই বৈধভাবে নিজ নিজ সিটে অবস্থান করুক। হলের শৃঙ্খলা রক্ষার্থে এমন অভিযান চলমান থাকবে।

২৩ জুন শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলের প্রাধ্যক্ষের স্বাক্ষর করা একটি নোটিশের মাধ্যমে হলে অবস্থান করা অনাবাসিক, বহিরাগত ও অন্য হলের শিক্ষার্থীদের ২৯ জুনের মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়। কোনো শিক্ষার্থী তার সমস্যার বিষয়ে ব্যক্তিগতভাবে হল প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে ২৮ জুনের মধ্যে অভিভাবকসহ হল প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগের নির্দেশও দেওয়া হয়েছিল। তবে শর্ত অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের সাঁড়া না পাওয়ায় হলে অবস্থান করা অবৈধ শিক্ষার্থীদের নামিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন হল প্রশাসন। একইসঙ্গে সেই সিটগুলোতে বৈধ শিক্ষার্থীদের ওঠানোর কথা জানানো হয়।

বিগত কয়েক মাসে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আবাসিক হলে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে সিট বাণিজ্য, সিট দখল, মধ্যরাতে মারধর ও হল গেটে তালা দেওয়ার মতো অনেক অভিযোগ রয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু প্রাধ্যক্ষসহ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করেছেন। পরে হলগুলোতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয় হল ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।