বর্ণাঢ্য আয়োজনে বসন্ত বরণ করবে ঢাবি সাংস্কৃতিক সংসদ


DU Correspondent | Published: 2023-03-14 01:39:07 BdST | Updated: 2024-06-16 11:26:25 BdST

ঋতুরাজ বসন্তকে ভিন্ন আঙ্গিকে উদযাপন করতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে চতুর্থ-বারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদ বসন্ত উৎসব ১৪২৯’। আগামী ১লা চৈত্র (১৫ই মার্চ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসি প্রাঙ্গণে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

সোমবার (১৩ মার্চ) বিকলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে, দিনব্যাপী আয়োজনের বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকবে গ্রামীণ লোকজ মেলা, ফানুস উৎসব এবং তারকা শিল্পীদের পরিবেশনায় থাকবে মনোরম সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। মেলায় পোশাক, অলংকার ও খাবারের স্টলের পাশাপাশি থাকবে নাগরদোলা, বানর নাচ, সাপের খেলা, পুতুল নাচ, বায়োস্কোপ, মোরগ লড়াই, পুঁথিপাঠ, কীর্তন, টিয়া পাখির সাহায্যে ভাগ্যগণনাসহ নানা ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ ও লৌকিক সংস্কৃতির বাহারি আয়োজন। মূলত, শহরে গ্রামবাংলার আবহ নিয়ে আসতে এমন আয়োজন বলছেন আয়োজকরা।

আয়োজনের আলোচনা ও গুণীজন সম্মাননা পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। অনুষ্ঠানে উদ্বোধক হিসেবে থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ। মুখ্য আলোচক হিসেবে থাকবেন প্রখ্যাত নাট্য ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ম হামিদ। এছাড়াও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে গুণীজন সম্মাননা গ্রহণ করবেন ওয়াহিদা মল্লিক জলি, রহমত আলী, রূপা চক্রবর্তী ও ফারুক আহমেদ। অনুষ্ঠানে সভা-প্রধান হিসেবে থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদের মডারেটর সাবরিনা সুলতানা চৌধুরী।

অনুষ্ঠানের আলোচনা সভা শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদের সদস্যদের শিল্পীদের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা থাকবে দর্শনার্থীদের জন্য। এছাড়াও কনসার্টে জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘আর্ক’ ও ‘গানপোকা’র সদস্যরা সঙ্গীত পরিবেশনা। মেলায় দর্শনার্থীদের জন্য থাকবে ওটিটি প্লাটফর্ম ‘চরকি’র ফ্রি সাবস্ক্রিপশন।

আয়োজন নিয়ে সংগঠনটির সভাপতি জয়ন্ত ভৌমিক ও সাধারণ সম্পাদক অনিক ধর এক যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদ বরাবরই দেশীয় সংস্কৃতিকে ধারণ ও লালন করতে তৎপর। তারই অন্যতম উদাহরণ আমাদের এই বসন্ত উৎসব। তরুণ প্রজন্মকে এই দেশীয় সংস্কৃতির সাথে একীভূত করার এই প্রয়াস আমাদের অব্যাহত থাকবে।