দক্ষিণ কোরিয়ার মূকাভিনয় উৎসবে যাচ্ছেন ঢাবির সায়েম


DU Correspondent | Published: 2024-05-19 12:21:25 BdST | Updated: 2024-06-17 03:32:20 BdST

দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য ‘সিউল ফ্রেন্ডশিপ ফেস্টিভ্যালে অংশ নেবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মাইম অ্যাকশনের সাবেক সভাপতি ও ইনস্টিটিউট মাইম অ্যান্ড মুভমেন্টের সদস্য আবু সাদাত মো. সায়েম।

আগামী ২৪-২৬ মে দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে সায়েম মূকাভিনয় প্রদর্শন করবেন। সিউলের মেয়র ও সে হোন এর আমন্ত্রণে সারা বিশ্বের ১০০ টিরও বেশি দেশ এই উৎসবে অংশগ্রহন করবে। উৎসবে অংশ নিতে সায়েম ২২ মে ঢাকা থেকে সিউলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন এবং ২৯ মে সিউল থেকে ঢাকায় ফিরবেন।

 

আবু সাদাত মো. সায়েম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে জীবনের শুরু থেকে মূকাভিনয় শিল্পের সঙ্গে রয়েছি। এ সময়ের মধ্যে দেশের বিভিন্ন আন্দোলন ও সামাজিক প্রেক্ষাপটে কখনো রাস্তায় আবার কখনো মিছিল বা সমাবেশে মূকাভিনয় করেছি। এছাড়াও আমাদের নিয়মিত প্রদর্শনীগুলোতে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে মূকাভিনয়কে শুধু কোন শৈল্পিক চর্চার মাধ্যম নয় বরং এই শিল্পকে একটি আন্দোলন হিসেবেও আবিষ্কার করার চেষ্টা করছি প্রতিনিয়ত। দেশের একজন নাগরিক ও শিল্পী হিসেবে যখন মাতৃভূমিকে কোন জায়গায় প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পাই অবশ্যই সেটা ব্যক্তি হিসেবে বেশ গর্বের।

ঢাকা ইউনিভার্সিটি মাইম অ্যাকশনের মডারেটর ড. ফাদার তপন ডি' রোজারিও বলেন, আমাদের মূকাভিনয় শিল্পীরা বরাবরই বিভিন্ন দেশে বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করছে সফলতার সঙ্গে। যে সব শিল্পী দীর্ঘদিন ধরে মূকাভিনয় শিল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত এবং বাংলাদেশের মূকাভিনয় শিল্পের চর্চাকে বিস্তৃত করতে কাজ করে যাচ্ছে তাদের মধ্যে সায়েম অন্যতম। আমি সবসময় তার কল্যাণ কামনা করি। একইসঙ্গে, প্রত্যাশি করছি, দক্ষিণ কোরিয়াতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এই উৎসবে অংশগ্রহণের মাধ্যমে সে দেশের জন্য সুনাম অর্জন করতে পারবেন।

আবু সাদাত মো. সায়েম ২০১৭ সালে ঢাকা ইউনিভার্সিটি মাইম অ্যাকশনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক ও পরে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি ইনস্টিটিউট অব মাইম অ্যান্ড মুভমেন্টের সদস্য হিসেবে কাজ করছেন ২০২১ সাল থেকে। এই পুরো সময় জুড়ে তিনি দেশে ও দেশের বাহিরে ১০০ টিরও বেশি মূকাভিনয় প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করেছেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সময়ে প্রায় ১০টি মৌলিক মূকগল্প ও ছায়া মূকগল্প লিখেছেন। উদ্বাস্তু, শেল্টার, প্রত্যাবর্তন ও নক্ষত্র পতনের রাত তার লেখা উল্লেখযোগ্য মূকগল্প।