উপাচার্যের বিশেষ ক্লাসে শিক্ষাজীবনের সমাপনী


Desk report | Published: 2022-05-21 10:36:30 BdST | Updated: 2022-07-04 22:13:55 BdST

শিক্ষাজীবনের সমাপনী প্রান্তে একদল আন্ডারগ্র্যাজুয়েট। যাদের একাডেমিক শ্রেণি পাঠের সমাপ্তি ঘটেছে। কদিন পরে স্নাতক পর্যায়ের শেষ পরীক্ষা। ক্লাস-পরীক্ষা কারো পছন্দের বিষয় না হলেও দিন শেষে শ্রেণিকক্ষের কথাই মনে পড়ে সবার। যেখানে ছাত্রজীবনের পথচলা শুরু এবং শেষ।

আমরা, অর্থাৎ গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি (বিএমবি) বিভাগের ৬ষ্ঠ ব্যাচ শ্রেণিতে পাঠদানের সমাপনী দিনে পৌঁছে গেছি। দিনটি ব্যতিক্রমীভাবে কাটানোর পরিকল্পনা করি।বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মহোদয়ের একটি বিশেষ ক্লাসের মধ্য দিয়ে শ্রেণি পাঠদানের ইতি ঘটবে।

বুধবার (১৫ মে) বেলা ১২টায় একাডেমিক ভবনের করিডর থেকে উপাচার্য সভাকক্ষে গেলাম। মিনিট দশেক পর উপাচার্য (চলতি দায়িত্ব) মহোদয় অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন সেমিনার কক্ষে এলেন৷

উপাচার্য মহোদয় শিক্ষার্থীদের কাছে ক্যাম্পাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে জানতে চান৷ শিক্ষার্থীরা ফেলে আসা চার বছরের পূর্ণতা ও অপূর্ণতার গল্প তুলে ধরেন৷

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবক অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার বিষয়ক দিক নির্দেশনা দেন৷ তিনি বলেন, ‘তোমরা অনার্স জীবনে দীর্ঘ একটি সময় পেয়েছো। মাস্টার্সে সেই সময় পাবে না। বিশ্ববিদ্যালয়কে তোমরা অনেক কিছু দিয়েছো, বিশ্ববিদ্যালয়ও তোমাদের দিয়েছে৷ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে জ্ঞান অর্জন করেছো, তা দিয়ে দেশ ও বিশ্বের উন্নয়নে কাজ করবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘উন্নত দেশের সরকার বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে সামান্য ফান্ড দিয়ে থাকে। সিংহভাগ ফান্ড দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাইরা৷ তোমরাও অ্যালামনাই হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে। সবার জন্য শুভ কামনা রইল।’ পরে ৬ষ্ঠ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা উপাচার্য মহোদয়কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। ব্যাচের পক্ষ থেকে স্মরণিক স্বরূপ উপাচার্যের ছবিসহ মগ ও ডাইরি উপহার দেয়৷ এসময় উপাচার্য মহোদয় শিক্ষার্থীদের মিষ্টি মুখ করান।

জাতীয় স্মৃতিসৌধে শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে ২০১৮ সালের ১৭ মে সাভার গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএমবি বিভাগে ৬ষ্ঠ ব্যাচের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। যখন লিখছি, তখন ২০২২ সালের ১৭ মে৷ ৬ষ্ঠ ব্যাচের বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের চার বছর পূর্তি হলো।