কঠিন সংগ্রামে অবিচল থাকার দীক্ষা বাবার কাছ পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: হানিফ


Shakib Aslam | Published: 2023-10-04 21:19:14 BdST | Updated: 2024-05-25 13:11:16 BdST

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া-৩ আসনের এমপি মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, শেখ হাসিনা ছোট বেলা থেকেই বঙ্গবন্ধুকে অনুসরণ করতেন। শেখ হাসিনা যে কঠিন দৃঢ়চেতনা এক সাহসী মনোবল সেটাও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কাছ থেকে পেয়েছে। কঠিন সংগ্রামে মধ্যেও কীভাবে অবিচল থাকতে হয় এই দীক্ষা শেখ হাসিনা বাবার কাছ থেকেও পেয়েছে। ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্র রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) বঙ্গীয় সাহিত্য-সংস্কৃতি সংসদের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে একটা ভয়াবহ ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তারের চেষ্টা চলছে। সংবিধান অনুযায়ী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০২৪ সালের জানুয়ারি প্রথম সাপ্তাহে হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তফসিল হয়তো নভেম্বরের প্রথম সাপ্তাহে হয়ে যাবে। কিন্তু এই নির্বাচনে দেওয়ার জন্য একটি দল আন্দোলন শুরু করছে। বিএনপি জামাত সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে চায় না, বরং তারা নির্বাচন বানচাল করতে চায়। সাংবিধানিক ধারাবাহিক প্রক্রিয়া বজায় রাখতে নির্দলীয় সরকারের বিকল্প নেই। তাহলে বিএনপি অসাংবিধানিক সরকার দেখতে চায়? বিএনপি গণতান্ত্রিক দল হলে অগণতান্ত্রিক সরকার কেন চাচ্ছে? কেন অসাংবিধানিক কথা বলছে? বিএনপি নেতাকে, তাদের শীর্ষ দুই নেতার মধ্যে বেগম খালেদা জিয়া যিনি ইতোমধ্যে বেশ কিছু মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে ছিলেন। উনি নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ নেই।

বুধবার (৪ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রীর ৭৭তম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

অনুষ্ঠানে বঙ্গীয় সাহিত্য-সংস্কৃতি সংসদের সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. মামুনুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম উপস্থিত ছিলেন। এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে বঙ্গীয় সাহিত্য-সংস্কৃতি সংসদের কেন্দ্রীয় সভাপতি পর্ষদের সদস্য অধ্যাপক ড. এম. শাহিনুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভায় সঞ্চালনায় ছিলেন অধ্যাপক মিঠুন মুস্তাফিজ।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সকল বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা, ইবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত ও সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয়'সহ শতাধিক শিক্ষার্থীরা।

আলোচনা সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, জননেত্রীর কল্যাণে গৃহহীনদের আবাসনের ব্যবস্থা, সমুদ্র জয়, সীমান্ত চুক্তি, ছিটমহল সমস্যার সমাধান, সমুদ্রে সাবমেরিন সহ মহাকাশ জয় সবকিছুই সম্ভব হয়েছে। এদিকে পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল, কর্ণফুলী টানেল , পারমানবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, সিক্স লাইন মহাসড়ক এসবকিছু দৃশ্যমান উন্নয়নগুলোর স্বপ্নদ্রষ্টা এবং বাস্তবায়নকারী হলেন আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি আরও বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে আজ স্মার্ট বাংলাদেশে প্রবেশের নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ আজকে বিশ্বকে জয় করতে যাচ্ছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার এবং বিশ্ব রাজনীতির এক উজ্জ্বল প্রভাব। তার নেতৃত্বের জন্য আজকে তিনি একজন বিশ্বনেতায় পরিণত হয়েছেন। তিনি হলেন আমাদের মাদার অফ হিউম্যানিটি। আজকে আমরা তার জন্মদিন পালন করছি।