রাবি ভর্তি পরীক্ষা: পুনরায় প্রবেশপত্র ডাউনলোডের সময় ২ মার্চ


RU Correspondent | Published: 2024-02-29 14:30:24 BdST | Updated: 2024-04-22 05:06:33 BdST

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোডের স্বাভাবিক সময়সীমা ছিল গত ২২ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা পর্যন্ত। তবে যারা উক্ত সময়ে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারেনি তাদের ডাউনলোডের সুযোগ দিতে নতুন সময় নির্ধারণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যারা কোনো কারণবশত নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারেনি, তারা আগামী ২ মার্চ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করতে পারবে। যা চলবে ৫ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যেই ডাউনলোড করতে হবে। তা না হলে নতুন করে আর ডাউনলোডের সময় দেওয়া হবে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পুনরায় প্রবেশপত্র ডাউনলোডের সময় ১ মার্চ দেওয়া থাকলেও ২ মার্চ থেকে ডাউনলোড করা যাবে বলে জানান তিনি।

এর আগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রবেশপত্র ডাউনলোড শুরু হয়েছিল। ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রবেশপত্র সংগ্রহের সময় ছিল। এরপর নতুন করে এ তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।

জানা গেছে, এবার রাবির ভর্তি পরীক্ষার জন্য চূড়ান্ত আবেদন জমা পড়েছে এক লাখ ৮৫ হাজার ৫০০টি। সে হিসেবে আসনপ্রতি আবেদন পড়েছে প্রায় ৪৭টি। মোট আসন তিন হাজার ৯৮৪টি। এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে এক হাজার ৮৭২টি আসন রয়েছে। এ ছাড়া ‘বি’ ইউনিটে ৫১৫ ও ‘সি’ ইউনিটে আসন রয়েছে এক হাজার ৫৯৭টি।

আসনপ্রতি সবচেয়ে বেশি আবেদন পড়েছে ‘বি’ ইউনিটে। আবেদনের সময়সীমা শেষ হয়েছে গত ১১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টায়। গত ২৬ জানুয়ারি থেকে ২৯ জানুয়ারি প্রথম দফার আবেদন পূর্ণ না হওয়া সাপেক্ষে দ্বিতীয় দফায় ১ থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি, তৃতীয় দফায় ৬ থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি এবং চতুর্থ দফায় ১০ ও ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চূড়ান্ত আবেদনের সুযোগ পান ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা।

‘এ’ ইউনিটে (মানবিক বিভাগ) চূড়ান্ত আবেদন জমা পড়েছে ৭৪ হাজার ৭০০টি, আসনপ্রতি আবেদন ৪০টি। এ ছাড়া ‘বি’ ইউনিটে (বাণিজ্য বিভাগ) ৩৪ হাজার ৫০০টি, আসনপ্রতি আবেদনে পড়েছে ৬৭টি। আর ‘সি’ ইউনিটে (বিজ্ঞান বিভাগ) ৭৬ হাজার ৩০০টি, আসনপ্রতি ৪৮টি আবেদন পড়েছে। আজ দুপুর ১২টা পর্যন্ত টাকা জমা দেওয়ার সুযোগ আছে। সে কারণে এ সংখ্যা কিছুটা বাড়তে পারে।

প্রসঙ্গত, আগামী ৫ মার্চ ‘সি’ ইউনিট, ৬ মার্চ ‘এ’ ইউনিট এবং ৭ মার্চ ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। গত বছরের ন্যায় এ বছরও দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ থাকছে। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় গত বছরের মতো ৮০টি বহুনির্বাচনী প্রশ্নের মান হবে ১০০ নম্বর। এক ঘণ্টার পরীক্ষায় প্রতিটি বহুনির্বাচনি প্রশ্নের মান হবে ১.২৫।