রাবিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটার সাক্ষাৎকার শুরু ২৩ মে


Abu Saleh Shoeb | Published: 2024-05-14 15:53:10 BdST | Updated: 2024-06-17 03:40:47 BdST

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার আগামী ২৩-২৫ মে-এর মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে। রোববার (১২ মে) মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও নাতি-নাতনির নির্বাচন কমিটির সদস্য সচিব ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক মো. জাহাঙ্গীর আলম সাউদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে জানানো হয়, ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির সাক্ষাৎকার আগামী ২৩-২৫ মে সকাল সাড়ে ৯টা বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সুখরঞ্জন ছাত্র শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে (টিএসসি) অনুষ্ঠিত হবে।

সাক্ষাৎকারে প্রথম দিন ২৩ মে ক্রমিক নং ১-৬৬০, দ্বিতীয় দিন ২৪ মে ক্রমিক নং ৬৬১-১৩২০ এবং ২৫ মে ১৩২১-১৯৬২ রোল পর্যন্ত সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে।

সাক্ষাৎকারের সময় প্রয়োজনীয় যেসব কাগজপত্র সঙ্গে আনতে হবে:

(ক) ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ও পছন্দক্রমপূরণকারী ভর্তিচ্ছু বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যাদের ক্ষেত্রে মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিচিতির প্রমাণক হিসেবে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক ইস্যুকৃত ডিজিটাল সার্টিফিকেট/এমআইএস কপি (ওয়েবসাইট http://mis.molwa.gov.bd/freedom-fighter-list থেকে) মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রকাশিত (ওয়েবসাইট http://mis.molwa.gov.bd/combined-list থেকে) বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সমন্বিত তালিকার কপি (যে পাতায় মুক্তিযোদ্ধার নাম রয়েছে সেই পাতা) ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে আনতে হবে।

(খ) এছাড়া ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ও পছন্দক্রম পূরণকারী ভর্তিচ্ছু নাতি-নাতনিদের ক্ষেত্রে মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র এবং বীর মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনি পরিচিতির প্রমাণক হিসেবে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট এলাকার মুক্তিযোদ্ধা সংসদের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা/জেলা প্রশাসকের স্মারক নম্বর সংবলিত সাম্প্রতিক প্রত্যয়নপত্র সঙ্গে আনতে হবে।

স্মারক নম্বর সংবলিত সাম্প্রতিক প্রত্যয়নপত্র ছাড়া কোনো শিক্ষার্থীর সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হবে না বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। নাতি/নাতনি প্রমাণের জন্য দাদা/দাদি অথবা নানা/নানি এবং বাবা/মা-এর জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে আসতে হবে। পরীক্ষার্থীর মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্রে স্বামীর নাম উল্লেখ থাকলে মায়ের জন্মনিবন্ধন কার্ডের কপি নিয়ে আসতে হবে। উল্লেখ্য যে, বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা/নাতি-নাতনি উভয়ের ক্ষেত্রে উপরে বর্ণিত সকল কাগজপত্রের ১ সেট ফটোকপি সাক্ষাৎকারের সময় জমা দিতে হবে।

উল্লেখ্য, বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা/নাতি-নাতনি কোটায় সাক্ষাৎকারের জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের তালিকা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে www.ru.ac.bd পাওয়া যাবে। প্রাথমিকভাবে সাক্ষাৎকারের জন্য নির্বাচিত কোনো শিক্ষার্থীর নাম একাধিক ইউনিটে থাকলে একবার সাক্ষাৎকারে অংশগ্রহণ করলেই সে সবকটি ইউনিটে উপস্থিত হয়েছে বলে বিবেচিত হবে।