ছাত্রলীগের নামে অন্যদের চাঁদাবাজি: জবির টিএসসি বন্ধ


Dhaka | Published: 2022-01-09 21:47:24 BdST | Updated: 2022-01-21 19:59:40 BdST

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) টিএসসি বন্ধ করে দিয়েছে শাখা ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগ নেতারা বলছেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের হয়রানির কথা চিন্তা করে, চাঁদাবাজি বন্ধ করতে টিএসসির সব দোকান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ আসায় টিএসসি বন্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহীম ফরাজি।

তিনি আরও বলেন, দোকানের জায়গায় ছাত্রছাত্রীদের আড্ডার জন্য পার্কের মতো ব্যবস্থা করা হবে। শিক্ষার্থীদের খাওয়ার ব্যবস্থার জন্য ক্যাম্পাসে ক্যান্টিনের পাশাপাশি নতুন করে ফুডকোর্ট বা খাবারের দোকান খোলা হবে।

আজ (রোববার) সরেজমিনে দেখা যায়, শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পূর্ব নির্দেশনা অনুযায়ী টিএসসির সব দোকান বন্ধ রয়েছে এবং মুষ্টিমেয় ছাত্রছাত্রী টিএসসিতে আড্ডা দিচ্ছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, আজ সকালে চা খেতে এসে দেখি টিএসসির সব দোকান বন্ধ। ক্যান্টিনে নিয়মিত জায়গা না পাওয়ায় আমরা সাধারণত টিএসসিতে চা খাই ও নাস্তা করি। ক্যাম্পাসের আশপাশে রায়সাহেব বাজার আর সদরঘাট যাওয়া ছাড়া চায়ের দোকান নেই। আজ হঠাৎ এটা কেন বন্ধ, বুঝলাম না।

ছাত্রলীগ সূত্রে জানা যায়, নতুন কমিটি গঠনের পরই শাখা ছাত্রলীগের নাম করে টিএসসি ও এর আশপাশের দোকান থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ ওঠে। কিন্তু তারা কেউ ছাত্রলীগের কর্মী নন। ছাত্রলীগের কর্মী পরিচয়ে বিভিন্ন লোক টিএসসিতে চাঁদাবাজি করে। এ কারণে ছাত্রলীগের দুর্নাম হয়।

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম আকতার হোসাইন বলেন, টিএসসি বন্ধ হওয়ায় এখন আর কোনো চাঁদাবাজি হবে না। জগন্নাথ ছাত্রলীগে কোনো চাঁদাবাজি বা নেশাগ্রস্তদের জায়গা হবে না। আমরা এখানে সব সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য মনোরম পরিবেশে বসার ব্যবস্থা করবো।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা এ বিষয়ে কিছু জানি না। এটা তো বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে নয়। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো এখতিয়ার নেই।