স্থানীয়দের মারধরে রক্তাক্ত চবি শিক্ষার্থী


CU Correspondent | Published: 2024-05-08 19:10:26 BdST | Updated: 2024-06-17 04:01:53 BdST

স্থানীয়দের মারধরের শিকার হয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক শিক্ষার্থী। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন ২ নম্বর গেটে এ ঘটনা ঘটেছে।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীর নাম আনাস মাহদি। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের চারুকলা ইন্সটিটিউটের একজন শিক্ষার্থী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্থানীয় এক তরকারি বিক্রেতার সাথে সবজির দাম নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় ওই শিক্ষার্থীর। একপর্যায়ে ওই শিক্ষার্থীকে মারধর করা হয়। এ সময়ে স্থানীয়দের আরও পাঁচ-ছয় জন তরকারি বিক্রেতার সাথে যোগ হয়ে তাকে মারধর করে। এরমধ্যে একজন বাঁশ দিয়ে ওই শিক্ষার্থীর মাথায় আঘাত করলে তার মাথা ফেটে রক্তাক্ত হয়।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আনাস মাহদী বলেন, তরকারি বিক্রেতার সাথে সবজির দাম নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময়ে তিনি আমার সাথে তুইতোকারি করে কথা বলতে থাকেন। তিনি আমার পরিচিত না এবং কেন তুইতোকারি কথা বলছে এটা জানতে চাইলে তিনি আমাকে মারধর করেন। এ সময়ে স্থানীয় বেশ কয়েকজনও আমাকে মারধর করেন। পরে মারধরের খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর স্যারসহ কিছু বড় ভাই এখানে এসে আমাকে নিয়ে যান। এ ঘটনায় আমি হাটহাজারী থানায় একটি জিডি করেছি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

চবি মেডিকেলে দায়িত্বরত ডা. আতাউল গনি পারভেজ বলেন, মারধরের শিকার হয়ে এক শিক্ষার্থী চবি মেডিকেলে আসেন। তার (ভুক্তভোগী) মাথা ফেটে যাওয়ার কারণে অনেক রক্ত ঝরেছে। আমরা তাকে তাৎক্ষণিকভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি।

ডোপ টেস্টের মাধ্যমে চবিতে শিক্ষার্থী ভর্তির সিদ্ধান্ত
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. অহিদুল আলম বলেন, ২ নম্বর গেটে আমাদের এক শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনা শুনে আমি তৎক্ষনাৎ সেখানে যায়। পরে স্থানীয় দোকানদারের সঙ্গে আমাদের কথা হয়। তারা আমাদের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেছেন। আমরা এ বিষয়ে পরবর্তীতে পদক্ষেপ নেব। আর ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী চবি মেডিকেলে চিকিৎসা শেষে হাটহাজারী থানায় একটি জিডি করেছেন।