চবির শাটল ট্রেনে যুক্ত হচ্ছে ‘পাওয়ার কার’, প্রতি বগিতে ঘুরবে ১৬ ফ্যান


CU Correspondent | Published: 2024-05-23 23:42:35 BdST | Updated: 2024-06-17 04:57:04 BdST

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষার্থীদের প্রধান বাহন শাটল ট্রেন। শহর থেকে প্রতিদিন প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থীর ক্যাম্পাসে যাতায়াতের একমাত্র অবলম্বন দুটি শাটল ট্রেন। তবে এই শাটল ট্রেনে গরম আসলেই চলাচলে সবচেয়ে বেশি কষ্টে পড়তে হয় শিক্ষার্থীদের।

বগি সংকট,গরমে গাদাগাদি অবস্থায় আসা যাওয়া শিক্ষার্থীদের নিত্যদিনের ভোগান্তির চিত্র শাটল ট্রেনে চোখে পড়বে। গরমে ভোগান্তি কমাতে এবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেনে ঈদের পরপরই যুক্ত হচ্ছে ডিজেলে চালিত ‘পাওয়ার কার’। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল ইসলাম। তবে আপতত দুটি শাটলের একটিতে যুক্ত হবে পাওয়ার কার। আর এই পাওয়ার কার যুক্ত হলে সচল হবে শাটলের প্রতিটি বগিতে ১৬টি ফ্যান। এতে কমবে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল ইসলাম এ কথা জানান।

নাজমুল ইসলাম বলেন,'বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা ঈদের পরপরই শাটল ট্রেনে পাওয়ার যুক্ত করব। আমরা একটি শাটলে যুক্ত করব। এর খরচ আমরা বহন করব। আর নতুন কোন ট্রেন বিশ্ববিদ্যালয়ে রুটে যুক্ত হবে না।’

তথ্য বলছে, এক কিলোমিটারে ডিজেল চালিত পাওয়ার কারসহ একটি ইঞ্জিন চালাতে ৩ দশমিক ৫ থেকে ৪ লিটার ডিজেল বেশি খরচ হয়, যার দাম প্রায় ৪০০ টাকা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. অহিদুল আলম বলেন,' শিক্ষার্থী সংখ্যা বেড়ে শাটল ট্রেনের উপর চাপ বেড়ে গেছে। দুপুর দেড়টার ও আড়াইটার ট্রেনে শিক্ষার্থীদের চাপ থাকে সবচেয়ে বেশি। এর জন্য আমরা একটা শাটলে পাওয়ার কার যুক্ত করা জন্য একটি আবেদন করি। সেই আবেদন অনুযায়ী আমাদের সাথে রেলওয়ে কতৃপক্ষের সাথে আমাদের আলাপ হয়েছে। আশা করি ঈদের পরপরই পাওয়ার কার যুক্ত হবে। আমরা চেষ্টা করেছিলাম দুটি শাটলে যুক্ত করার জন্য। কিন্তু রেলওয়ে আমাদের জন্য একটা বরাদ্দ রাখছেন। আমরা ইউজিসির কাছে পাওয়ার কারের খরচের বিষয়ে অবগত করব।

উল্লেখ্য, শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের দাবির মুখে গত ৫ মে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শাটল ট্রেনে পাওয়ার যুক্ত করার জন্য একটি আবেদন করে রেলওয়ে কতৃপক্ষের নিকট। এরপরপরই রেলওয়ে কতৃপক্ষ ইতিবাচক সাড়া দেয়। বর্তমানে দুটি শাটল মোট ১৪ বার শহর-ক্যাম্পাস-শহর আসা যাওয়া করে। প্রতিটি শাটলে দশটি করে বগি আছে।