হিল্লোলের আমন্ত্রণে ঢাকায় মীরাক্কেলের মীর


Desk report | Published: 2022-03-29 18:16:11 BdST | Updated: 2022-05-20 19:46:43 BdST

বাংলাদেশে এসেছেন কলকাতার নামকরা উপস্থাপক, অভিনেতা, কণ্ঠশিল্পী মীর আফসার আলী। সবার কাছে তিনি মীরাক্কেলের মীর নামে পরিচিত৷ গেল কয়েকদিন ধরে তাকে ঢাকার রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতে দেখা যাচ্ছে।

বিশেষ করে ঢাকার খাবার দাবার নিয়ে ভিডিও বানাচ্ছেন তিনি৷ ভক্তদের সঙ্গে সেলফি তুলছেন।

ঢাকায় আসার কারণটা স্পষ্টভাবে জানালেন আজ এক সংবাদ সম্মেলনে। সেখানে গিয়ে দেখা গেল মীরের পরনে ফুডকা লেখা এক টি-শার্ট। ফুডকা মূলত একটি ইউটিউব চ্যানেল, যেখানে খাবার নিয়ে ভ্লগ করা হয়।

ভ্লগে মীর আর লাহিড়ি থাকেন ক্যামেরার সামনে। তাদের সঙ্গে আরও তিনজন থাকেন ভিডিওধারণের কাজে। তাদের সবাইকেই পাওয়া গেছে ফেসবুকে দেয়া সেইসব ছবি ও ভিডিওতে।

তাদের আসার কারণ জানাতে মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত কথা বলে ফুডকা টিম। জানা যায়, দেশের অভিনেতা ও ফুড ব্লগার আদনান ফারুক হিল্লোলের আমন্ত্রণে তারা বাংলাদেশে এসেছেন এবং তাদের সহযোগিতা করছেন ইনফ্লুয়েন্সার হাব।

হিল্লোল এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘মীর এবং আমরা একই সময় কাজ শুরু করি। আমি বাংলাদেশে, তারা কলকাতায়। করোনার সময় আমরা একটা লাইভে বসেছিলাম। সেখান থেকে পরিচয়। আমন্ত্রণ দেয়া-নেয়ার বিষয় তো ছিলই। সেই ধারাবাহিকতায় এবার তারা বাংলাদেশে আসলেন। আমি আনন্দিত।'

হিল্লোল আরও বলেন, ‘আমরা যেটা করছি সেটাকে আর ফুড ভ্লগিং না বলে ফুড ডকু বলা যেতে পারে। আমি বা এখানে যারা আছেন তাদের তো ভাইরাল হওয়ার কিছু নেই এখন। যে ভিডিওগুলো করছি, সেগুলো যেন ২০-৪০-৫০ বছর পর কাউকে সাহায্য করে, সেটাই আমাদের চাওয়া।’

ফুডকা টিম এক পরিসংখ্যান তুলে ধরে জানায়, ফুডকা ইউটিউব চ্যানেলে যে ভিউ হয় তার বিশ শতাংশ বাংলাদেশ থেকে। মূলত সেটা বাড়াতেই ঢাকায় আসা।

মীর জানান, ফুডকা টিম ঢাকা থেকে বিদায় নেবে ১ এপ্রিল। এর মধ্যে তারা ঘুরেছে মাওয়ায়, সেখানে ইলিশ খেয়েছে। তারা গিয়েছিলেন পুরান ঢাকার বিউটি বোর্ডিংয়ে, বিহারি ক্যাম্প, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। এছাড়া বিয়ে বাড়ির কাচ্চি খাওয়ার জন্য একটি বিয়ের অনুষ্ঠানেও গিয়েছিল ফুডকা টিম।

অনেকেরই জানতে চান কোন খাবারটি ভালো লাগল। মীর বলেন, ‘আমার সবসময়ের প্রিয় খাবার বিরিয়ানি। ঢাকার সব খাবারই ভালো লেগেছে। তবে যেটা শকিং এবং ভুলতে পারব না, সেটা হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মরিচ-তেঁতুল চা।’

যে মীর খাবারের ভ্লগ করেন তিনি কি রান্না করতে পারেন? এ প্রশ্নের জবাবে মীর মজা করে বলেন, 'আমি খুবই লজ্জিত। ডিম সিদ্ধ ছাড়া কিছু করতে পারি না।’ তখন পাশ থেকে সুনন্দ জানান, মীর ব্ল্যাক কফি ভালো বানাতে পারেন।

ফুডকা টিমের সদস্য সুনন্দ বলেন, ‘আমাদের ভিডিওতে যে মন্তব্যগুলো আসতো তার ৮০ শতাংশ বন্তব্য বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানানোর মন্তব্য। আমরা ভাবলাম যে ২০ শতাংশ রিচ বাংলাদেশ থেকে আসছে সেটা বাংলাদেশে গেলে ৫০ শতাংশ বা এর বেশিও হতে পারে।’

ফুডকা টিম বাংলাদেশে আসার পর ঢাকার রাস্তার যানজট নিয়ে বেশ কথা হচ্ছে। সেখান থেকে একটা অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন ইন্দ্রজিত লাহিরি। তিনি বলেন, ‘আমরা যে গাড়িতে ছিলাম সেটা জ্যামে থাকার কারণে পাশের গাড়ির যাত্রী আমাদেরকে অনেক্ষণ ধরে দেখতে পারে এবং মীরকে চিনতে পারে। তারা মীরকে একটা পেয়ার অফার করে। মীর সেটা নেয়, কেটে খাওয়া হয়। আর সবই আদান প্রদান হয় গাড়ির জানালা দিয়ে। এতকিছু হওয়ার পর গাড়িটা যখন ছাড়ল, তখন মাত্র ৬ সেকেন্ট চলল এবং আবার গাড়িটা থেমে গেল। পাশের গাড়িটা আবার পাশে এসেই দাঁড়াল।’

আর সেলফির তো কথাই নেই। মীরের দেয়া হিসেবে দিনে গড়ে হাজার সেলফি তুলতে হয়েছে তাকে। সেলফি তোলার জন্য লাইনও লেগে গিয়েছিল একদনি।